কুড়িগ্রামের রৌমারী সীমান্তে বিএসএফ’র ছোঁড়া পাথরের আঘাতে আহত নিখোঁজ বাংলাদেশি যুবক নূর হোসেনের (২৫) লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার ভোরে রৌমারী সদর উপজেলার বারবান্দা গ্রামের জিনজিরা নদীতে তার মরদেহ ভাসতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়।
রৌমারী সীমান্তে নিখোঁজ বাংলাদেশির লাশ উদ্ধার
 

কুড়িগ্রামের রৌমারী সীমান্তে বিএসএফ’র ছোঁড়া পাথরের আঘাতে আহত নিখোঁজ বাংলাদেশি যুবক নূর হোসেনের (২৫) লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার ভোরে রৌমারী সদর উপজেলার বারবান্দা গ্রামের জিনজিরা নদীতে তার মরদেহ ভাসতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়।


খবর পেয়ে রৌমারী থানা পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হস্তান্তরের কাজ করছেন বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার ভোররাতে রৌমারী সদর ইউনিয়নের বারবান্ধা গ্রামের মৃত মুন্নু মিয়ার ছেলে নূর হোসেনসহ কয়েকজন বাংলাদেশি আর্ন্তজাতিক সীমানা পিলার ১০৬৬ এর নিকট সীমান্তবর্তী কালাইয়ের চর নদীর ব্রিজের নীচ দিয়ে গরু আনতে যায়।

এ সময় ভারতের মাইনকারচর ক্যাম্পের টহলরত বিএসএফ সদস্যরা বাংলাদেশিদের দেখে পাথর ছুঁড়ে মারে। এতে বাংলাদেশি যুবক নূর হোসেন মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে নদীর পানিতে নিখোঁজ হন। অনেক খোঁজাখুঁজির পর তার সন্ধান পাওয়া যায়নি। তাকে ফিরে পেতে বিজিবি-বিএসএফ পর্যায়ে পতাকা বৈঠক হলে নিঁখোজ যুবকের সন্ধান গোপন রাখে বিএসএফ। অবশেষে বুধবার ভোরে সীমান্তবর্তী জিনজিরা নদীতে তার ভাসমান লাশের সন্ধান মেলে।

এ ব্যাপারে রৌমারী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এবিএম সাজেদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বাংলাদেশি যুবক নূর হোসেনের লাশ সনাক্ত করা হয়েছে। তার পরিবার অভিযোগ করলে এ ঘটনার পরি প্রেক্ষিতে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Post A Comment: