চালক ঘুমিয়ে ঘুমিয়ে গাড়ি চালানোয় দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুই চালক নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় অন্তত আহত হয়েছেন আরো ৩০ যাত্রী। এদের মধ্যে ১০ জনের অবস্থা গুরুতর। তাদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
ঘুম কেড়ে নিল দুই বাসচালকের প্রাণ

 চালক ঘুমিয়ে ঘুমিয়ে গাড়ি চালানোয় দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুই চালক নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় অন্তত আহত হয়েছেন আরো ৩০ যাত্রী। এদের মধ্যে ১০ জনের অবস্থা গুরুতর। তাদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।


এ ঘটনায় রংপুর ঢাকা মহাসড়কে প্রায় তিন ঘটনা যান চলাচল বন্ধ থাকে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

রংপুর-ঢাকা মহাসড়কের দমদমা ব্রিজ এলাকায় সকাল ৮টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, ঢাকা থেকে রংপুরগামী খালেক এন্টারপ্রাইজের নাইট কোচ রংপুরে আসছিল। অপরদিকে রংপুর থেকে ছেড়ে যাওয়া ঢাকাগামী সোনার মদিনা নামে অপর একটি বাস ঢাকার উদ্দেশ্যে যাচ্ছিল। রংপুর নগরীর দমদমা ব্রিজের উপরে গেলে দুই বাসের সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই খালেক এন্টারপ্রাইজের বাসের ড্রাইভার আনোয়ার হোসেন নিহত হন।



খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আহত বাস যাত্রীদের উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনার পথে সেখানে সোনার মদিনা পরিবহনের ড্রাইভার মারা যায়। তবে তার নাম পাওয়া যায়নি। বর্তমানে হাসপাতালে ৩০ জন চিকিৎসাধীন আছে। তাদের মধ্যে ১০ জনের অবস্থা আশংকাজনক বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

আহত যাত্রীরা জানান, খালেক এন্টারপ্রাইজের চালক আনোয়ার হোসেন চোখে ঘুম নিয়ে গাড়ি চালাচ্ছিল। তাকে বারবার নিষেধ করার পরেও তিনি সতর্ক হননি। ফলে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে।

রংপুর ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা সহিদুল ইসলাম জানান, আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে আহতদের উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করি।

রংপুর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম সাইফ  জানান, দুর্ঘটনার কারণে কিছুক্ষণ যান চলাচল বন্ধ থাকে পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এখন স্বাভাবিক রয়েছে যান চলাচল করছে।

Post A Comment: