নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ থেকে উদ্ধার হওয়া বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদের সঙ্গে গত বছর দিয়াবাড়িতে উদ্ধার হওয়া অস্ত্রের মিল রয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) প্রধান মনিরুল ইসলাম।
 রূপগঞ্জ আর দিয়াবাড়ির অস্ত্রের নেপথ্যে ‘একই চক্র’


 নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ থেকে উদ্ধার হওয়া বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদের সঙ্গে গত বছর দিয়াবাড়িতে উদ্ধার হওয়া অস্ত্রের মিল রয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) প্রধান মনিরুল ইসলাম।


তিনি বলেন, একই কৌশলে এ দুই স্থানে অস্ত্র ও গোলাবারুদ লুকিয়ে রাখা হয়েছিল।  এর পেছনে একটি চক্রই সক্রিয় থাকতে পারে।

শুক্রবার নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে ৫নং সেক্টরে অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে মনিরুল সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, রূপগঞ্জে উদ্ধার করা অস্ত্র ও গোলাবারুদ দিয়াবাড়িতে উদ্ধার হওয়া অস্ত্রের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ যা একই পদ্ধতিতে লুকিয়ে রাখা হয়েছে।  এসব মিলের কারণে পুলিশের ধারণা এটি একই গ্রুপের কাজ।

উদ্ধার হওয়া অস্ত্রগুলো সচল ও স্বয়ংক্রিয় বলেও ধারণা এই পুলিশ কর্মকর্তার। বিপুল পরিমাণ এসব অস্ত্র দুই-তিনমাস আগে এখানে রাখা হয়েছে বলেও ধারণা করছেন তিনি।

তবে এ ঘটনায় জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা রয়েছে কিনা পুলিশ তা এখনো নিশ্চিত হতে পারেনি বলে জানান সিটিটিসি প্রধান।

এরআগে সকালে পরিদর্শনে গিয়ে পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) শহীদুল হক জানান, বড় ধরনের নাশকতার জন্য নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে অস্ত্র ও গোলাবারুদের মজুদ গড়ে তোলা হয়েছিল।

তিনি জানান, এই অভিযানে একটি বাড়ি ও পাশের লেক থেকে দুটি রকেট লঞ্চার, ৬২টি এম-১৬ রাইফেল, ৫টি পিস্তল, বিপুল পরিমাণ গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত বছর রাজধানীর উত্তরার দিয়াবাড়িতে একটি খাল থেকে ৯৭টি পিস্তল, ৪৯৪টি ম্যাগাজিন ও ১ হাজার ৬০টি গুলি উদ্ধার করেছিল পুলিশ।

Post A Comment: