সময়ের আগেই বাজারে এসেছে আমের রাজা ল্যাংড়া আম। চাষিরা বলছেন, অতিরিক্ত গরমের কারণে ল্যাংড়া আগেভাগেই গাছে পাকতে শুরু করেছে। তাই তারা বাজারেও তুলেছেন। যদিও প্রশাসন ৮ জুনের আগে গাছ থেকে ল্যাংড়া আম পাড়তে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল।
Long-ago-lingerie-in-the-market 


সময়ের আগেই বাজারে এসেছে আমের রাজা ল্যাংড়া আম। চাষিরা বলছেন, অতিরিক্ত গরমের কারণে ল্যাংড়া আগেভাগেই গাছে পাকতে শুরু করেছে। তাই তারা বাজারেও তুলেছেন। যদিও প্রশাসন ৮ জুনের আগে গাছ থেকে ল্যাংড়া আম পাড়তে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল।


সোমবার বিকালে রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার বানেশ্বরের আমের হাটে বেশ কয়েকজন ব্যবসায়ীর কাছে ল্যাংড়া আম দেখা যায়। প্রতি মণ ল্যাংড়া বিক্রি হচ্ছিল এক হাজার ৪০০ টাকা থেকে এক হাজার ৬০০ টাকায়।


আবদুল জাব্বার নামে এক ব্যবসায়ী বলেন, এবার অতিরিক্ত গরম পড়েছে। তাই বেধে দেওয়া সময়ের আগেই গাছে ল্যাংড়া আম পাকতে শুরু করেছে। লোকসান এড়াতে চাষিরা আম পেড়েছেনও। সেই আম তিনি কিনি বাজারে তুলেছেন।
 


ঝুড়িতে থাকা ল্যাংড়া জাতের একটি পাকা আম দেখিয়ে মহাররম আলী নামে আরেক ব্যবসায়ী বলেন, তার ইজারা নেওয়া বাগানে গত সপ্তাহের প্রথম থেকেই ল্যাংড়া পাকতে শুরু করেছে। এরপর আম পড়তে শুরু করেছিল। তাই তিনিও আম পেড়ে বাজারে তুলেছেন।

মমতাজ আলী নামে অপর এক ব্যবসায়ী বলেন, আম পাকার ব্যাপারটি প্রত্যেক বছরের আবহাওয়ার ওপর নির্ভর করে। ফলে কোন আম কখন পাকবে, তা আগে থেকে বলা মুশকিল। এবার গাছপাকা ল্যাংড়াই তারা বাজারে তুলেছেন। কিন্তু তা বেধে দেওয়া সময়ের আগেই হওয়ায় তারা ভ্রাম্যমাণ আদালতের আতঙ্কে আছেন। তাই আগামী বছর থেকে আম নামানোর ক্ষেত্রে কোনো সময় বেধে না দেওয়ার জন্য প্রশাসনের কাছে দাবি জানান।


জানতে চাইলে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. সালাহউদ্দিন বলেন, এবার কৃষি বিভাগ, উপজেলা প্রশাসন ও আমচাষিদের সমন্বয়ে আম নামানোর সময় বেধে দেয়া হয়েছিল। তবে বেধে দেওয়া সময়ের চার থেকে পাঁচ দিন আগে গাছে আম পাকলে চাষিরা তা নামাতে পারবেন।

এবার ১৫ মে থেকে গোপালভোগ ও গুটি, ২৫ মে থেকে হিমসাগর ও লখনা জাতের আম নামানো শুরু হয়েছে। আগামী ৮ জুন থেকে ল্যাংড়া, ১০ জুন থেকে ফজলি, ২০ জুন থেকে আম্রপালি এবং ১৫ জুলাই থেকে আশ্বিনা আম নামানোর জন্য সময় বেধে দেওয়া আছে।

Post A Comment: