শৈশবের ক্লাব সান্তোস থেকে ৫৭মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে স্প্যানিশ জায়ান্ট ক্লাব বার্সেলোনায় যোগ দিয়েছিলেন নেইমার। এই ট্রান্সফার ফির পরিমাণ বিনোয়োগকারী সংস্থা ডিআইএসের কাছে গোপন করেছিলেন নেইমার ও তার পরিবার। এ নিয়ে বেশ কয়েকবার আদালতে যেতে হয়েছে নেইমারকে। তবে এখানেই শেষ নয়, হতে পারে দুই বছরের কারাদণ্ড। সান্তোস থেকে বার্সায় যাওয়ার সময় ট্রান্সফার ফির সঠিক অংক গোপন করে জালিয়াতি করেছেন নেইমার এমনটাই দাবি তার বিনিয়োগকারী সংস্থা ডিআইএসের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ডেলসি সোনদার। চুক্তি ছিলো নেইমারের ট্রান্সফার ফির ৪০ শতাংশ টাকা পাবে ডিআইএস।

 

 শৈশবের ক্লাব সান্তোস থেকে ৫৭মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে স্প্যানিশ জায়ান্ট ক্লাব বার্সেলোনায় যোগ দিয়েছিলেন নেইমার। এই ট্রান্সফার ফির পরিমাণ বিনোয়োগকারী সংস্থা ডিআইএসের কাছে গোপন করেছিলেন নেইমার ও তার পরিবার। এ নিয়ে বেশ কয়েকবার আদালতে যেতে হয়েছে নেইমারকে। তবে এখানেই শেষ নয়, হতে পারে দুই বছরের কারাদণ্ড।

সান্তোস থেকে বার্সায় যাওয়ার সময় ট্রান্সফার ফির সঠিক অংক গোপন করে জালিয়াতি করেছেন নেইমার এমনটাই দাবি তার বিনিয়োগকারী সংস্থা ডিআইএসের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ডেলসি সোনদার। চুক্তি ছিলো নেইমারের ট্রান্সফার ফির ৪০ শতাংশ টাকা পাবে ডিআইএস।

কিন্তু ট্রান্সফার ফি নিয়ে লুকোচুরি করায় তা থেকে বঞ্চিত হয়েছে সংস্থাটি। এই অভিযোগে নেইমারের দুই বছরের কারাদণ্ড চাইছেন স্পেনের রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলিরা। এ কারণে নেইমারকে ডেকে পাঠিয়েছেন স্পেনের জাতীয় আদালত। তবে প্রথমবারের মতো অপরাধী হওয়ায় স্পেনের আইনানুযায়ী নেইমারের এমন শাস্তি হবে না বলে মনে করছেন অনেকেই। অন্যদিকে নেইমারের পরিবারের কাছ থেকে দশ মিলিয়ন ইউরো ক্ষতিপূরণ দাবি করেছে ডিআইএস।

এছাড়া সান্তোস ও বার্সেলোনার কার্যনির্বাহী কর্মকর্তা, নেইমারের পরিবারবর্গ ও দলবদলের সঙ্গে জড়িত সবাইকে আদালতে হাজির হওয়ার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দলবদলের সময় নেইমারের ট্রান্সফারের ফির সঠিক অংক গোপন করেছিলো বার্সেলোনাও। এর সাথে জড়িত কর্মকর্তাদের অভিযুক্ত করা হয়েছে।

কথিত আছে গোপনকৃত সেই ট্রান্সফার ফির একটা নির্দিষ্ট অংশ পেয়েছেন নেইমারের মা-বাবা। এই ঘটনা সামনে আসে ২০১৪ সালে যখন বার্সেলোনা নেইমারের ট্রান্সফার ফি প্রকাশ করেছিলো। তখন দেখা যায় ট্রান্সফার ফির পরিমাণ ৫৭ মিলিয়ন ইউরোর চেয়ে ঢের বেশি।

Post A Comment: