দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার রামপুর নামক স্থানে যাত্রীবাহী বাসের চাপায় ২ জন নিহত ও অপর ৪ জন আহত হয়েছে। সোমবার সকাল সাড়ে ৯টায় দিনাজপুর-পঞ্চগড় মহাসড়কের কাহারোল উপজেলার রামপুর মোড় এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

    দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার রামপুর নামক স্থানে যাত্রীবাহী বাসের চাপায় ২ জন নিহত ও অপর ৪ জন আহত হয়েছে। সোমবার সকাল সাড়ে ৯টায় দিনাজপুর-পঞ্চগড় মহাসড়কের কাহারোল উপজেলার রামপুর মোড় এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।


নিহতরা হলেন- কাহারোল উপজেলার সুন্দরপুর ইউনিয়নের বারপাটিয়া গ্রামের মৃত মাহাতাব উদ্দিনের স্ত্রী জয়নব বেগম (৫৫) ও চিরিরবন্দর উপজেলার আলোকডিহি ইউনিয়নের গচাহার মৃত আব্দুল জব্বারের ছেলে মাছ ব্যবসায়ী মো. মাজেদুর রহমান (৩২)।

এ ঘটনায় আহত হয়েছেন কাহারোল উপজেলার সুন্দরপুর ইউনিয়নের গড়মল্লিকপুর গ্রামের সুশিল বর্ষের ছেলে পলাশ বর্ষ (২৫), একই ইউনিয়নের কান্তনগর গ্রামের মো. আব্দুর রশিদের ছেলে মো. জামিরুল (১২), দ্বীপ নগর গ্রামের মো. আব্দুস সালামের ছেলে মো. সালমান (২৪), ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার ছোট বেগুনবাড়ি গ্রামের মো. জয়লানের ছেলে মো. রফিুকল ইসলাম (২৪)।



স্থানীয় বাসিন্দা মো. জয়নাল জানান, সকালে দুর্ঘটনাস্থলের কাছে হাইওয়ে পুলিশ গাড়ি থামিয়ে কাগজপত্র পরীক্ষা করছিলেন। এ সময় একটি ট্রাককে থামার নির্দেশ দিলে ট্রাকের পিছনে থাকা দিনাজপুর থেকে ছেড়ে আসা পঞ্চগড়গামী যাত্রীবাহী বাস শাহী পরিবহন দ্রুতগতিতে থাকার কারণে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা এবং একটি রিকশাভ্যানকে যাত্রীসহ চাপা দিয়ে রাস্তার ধারে একটি গাছে সাথে ধাক্কা লেগে গাড়িটি থেমে যায়। এ সময় ঘটনাস্থলেই অটোরিকশার যাত্রী জয়নব বেগম এবং ভ্যান যাত্রী মাছ ব্যবসায়ী মো. মাজেদুর রহমান নিহত হয়। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন ৪ জন। স্থানীয় জনতা গাছ কেটে গাড়ি সরিয়ে নিচে চাপা পড়া অবস্থায় আরও একজনকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে।

ঘটনার পর বিক্ষুব্ধ জনতা হাইওয়ে পুলিশকে ঘটনার জন্য দায়ী করে এবং তাদের চাঁদাবাজি বন্ধের দাবিতে সড়ক অবরোধ করে রাখে।

সংবাদ পেয়ে বীরগঞ্জ সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. রুহুল আমীনের নেতৃত্বে বীরগঞ্জ এবং কাহারোল থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ফলে এক ঘণ্টা পর যান চলাচল আবার স্বাভাবিক হয়।

এদিকে সোমবার দুপুরে দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে মাইসা আক্তার (৭) নামের এক শিশু নিহত হয়েছে।

মাইসা আক্তার ফুলবাড়ী উপজেলার বেতদিঘী গ্রামের মো. হারুনের মেয়ে ও বেতদিঘী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণীর ছাত্রী।

Post A Comment: