মুসলিম নামের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি চীনের একটি প্রদেশে। সন্তানের এমন কোনও নাম রাখা যাবে না, যা শুনে মনে হয় সে ইসলাম ধর্মাবলম্বী। শুধু নাম রাখার ক্ষেত্রেই নয়, লম্বা দাড়ি রাখা বা লোকালয়ে বোরখা পড়া নিয়েও কিছুদিন আগেই নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। সম্প্রতি এমন ফতোয়া জারি করা হয়েছে চীনের জিংজিয়াং প্রদেশে। সরকারের দাবি, চীনে উগ্রপন্থাকে রুখতেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।



মুসলিম নামের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি চীনের একটি প্রদেশে। সন্তানের এমন কোনও নাম রাখা যাবে না, যা শুনে মনে হয় সে ইসলাম ধর্মাবলম্বী। শুধু নাম রাখার ক্ষেত্রেই নয়, লম্বা দাড়ি রাখা বা লোকালয়ে বোরখা পড়া নিয়েও কিছুদিন আগেই নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। সম্প্রতি এমন ফতোয়া জারি করা হয়েছে চীনের জিংজিয়াং প্রদেশে। সরকারের দাবি, চীনে উগ্রপন্থাকে রুখতেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

জিংজিয়াংয়ে সম্প্রতি বেশ কিছু নাম নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সেই তালিকায় রয়েছে 'জেহাদ', 'সাদ্দাম', 'ইসলাম', 'কুরান', 'মেদিনা'র মতো কয়েক ডজন নামও। সরকার জানিয়ে দিয়েছে, এসব নাম রাখা হলে শিশুরা সবরকম সরকারি সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হবে। এমনকি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট চালু করা বা সরকারি স্কুলে ভর্তির সুযোগ থেকেও তারা বঞ্চিত হবে বলে জানানো হয়েছে। হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডাব্লিউ) জানিয়েছে, সম্প্রতি জিংজিয়াং কর্তৃপক্ষ এমন বেশ কিছু নাম নিষিদ্ধ করেছে, যেগুলি ইসলাম আবেগকে অতিরঞ্জিত করে তুলতে পারে। ধর্মীয় চরমপন্থাকে নিয়ন্ত্রণে রাখতেই এমন সিদ্ধান্ত বলে মনে করছে তারা। তবে চীনের মানবাধিকারকর্মীরা মনে করছেন, এ ধরনের সিদ্ধান্ত ধর্মীয় স্বাধীনতাকে খর্ব করতে পারে। কেউ কেউ একে 'অবাস্তব নিষেধাজ্ঞা' বলেও দাবি করেছেন।

চিনের জিংজিয়াং প্রদেশে বেশির ভাগ মানুষই মুসলিম ধর্মাবলম্বী। নিজেদের ক্ষমতা প্রতিষ্ঠার দাবিতে বিভিন্ন সময় সরব হন এ প্রদেশের বাসিন্দারা। কখনো কখনো সেই দাবি চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়ায় চীন সরকারের কাছে। সূত্রের খবর, তাই আরো কড়া হতে চাইছে সরকার। গত ১ এপ্রিলই একটি নির্দেশিকা জারি করে সে দেশের সরকার জানিয়ে দেয় জিংজিয়াংয়ে কী কী করা যাবে, আর কোন কোন কাজ থেকে নিজেদের বিরত রাখতে হবে। নামের ওপর নিষেধাজ্ঞার বিষয়টিও ওই তালিকায় সংযোজন করা হয়।

Post A Comment: