ভোলা শহরের যুগীর ঘোল এলাকায় হোসাইনিয়া প্রি-ক্যাডেট মাদ্রাসার খণ্ডকালীন শিক্ষক মো. শাহাবুদ্দিনের বিরুদ্ধে শিশু শিক্ষার্থীকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বুধবার রাতে ওই শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ।
শিশু শিক্ষার্থীকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে শিক্ষক আটক 

ভোলা শহরের যুগীর ঘোল এলাকায় হোসাইনিয়া প্রি-ক্যাডেট মাদ্রাসার খণ্ডকালীন শিক্ষক মো. শাহাবুদ্দিনের বিরুদ্ধে শিশু শিক্ষার্থীকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বুধবার রাতে ওই শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ।


আটক শাহাবুদ্দিন ভোলার তজুমদ্দিন উপজেলার চাঁদপুর ইউনিয়নের মৃত ফজলে হোসেনের ছেলে ও ভোলা সরকারি কলেজের রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিভাগের ৩য় বর্ষের ছাত্র।

স্থানীয় ও ভিকটিমের পরিবারের অভিযোগ, বুধবার মাদ্রাসার ক্লাস চলাকালে শিক্ষক শাহাবুদ্দিন ওই ছাত্রীকে যৌন নির্যাতন করে। পরে ভিকটিমকে একথা কাউকে বলতে নিষেধ করে ও ভয় দেখায়। পরে ওই ছাত্রী বাসায় গেলে গোসল করানোর সময় তার মা গায়ে নোখের আচরের চিহ্ন দেখতে পায়। এসময় তাকে আঘাতের কথা জিজ্ঞেস করলে প্রথমে ভয়ে কিছু না বললেও পরে মায়ের চাপে সব বলতে বাধ্য হয়।

মেয়েটির পরিবার বিষয়টি তাৎক্ষণিক মাদ্রাসা অধ্যক্ষকে জানালে তিনি ওই শিক্ষককে ডেকে আনেন। এ ব্যাপারে তাকে জিজ্ঞেস করলে তিনি বিষয়টি অস্বীকার করেন। পরে অধ্যক্ষ ও স্থানীয়রা মিলে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

অভিযুক্ত শিক্ষক মো. শাহাবুদ্দিন জানান, তিনি ওই ছাত্রীকে যৌন নির্যাতন করেননি। ক্লাসে পড়া না পারায় তাকে হাত দিয়ে মার দেয়ায় তার শরীরে আঘাতের চিহ্ন হয়েছে।

হোসাইনিয়া প্রি ক্যাডেট মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আব্বাস উদ্দিন বলেন, শাহাবুদ্দিন ওই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক না। সে বহিরাগত ভোলা কলেজের ছাত্র। মাদ্রাসা চলাকালে মাদ্রাসায় প্রবেশ করে এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানি করায় তাকে পুলিশে দেয়া হয়েছে এবং তার বিরুদ্ধে একটি মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এ ব্যাপারে ভোলা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মীর খায়রুল কবির বলেন, আমরা অভিযুক্ত শাহাবুদ্দিনকে আটক করেছি। মামলা হলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Post A Comment: