ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি এবং বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেছেন, বর্তমান প্রজন্ম ক্রমেই ইতিহাস বিমুখ হয়ে শেকড়চ্যুত হচ্ছে। এই অশনিসংকেত উত্তরণে সকল কলেজ, পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের ইতিহাস ও মাতৃভাষা বাংলাকে কারিকুলামে অন্তর্ভূক্ত করতে হবে।
‘কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে দেশের ইতিহাস অন্তর্ভুক্ত করতে হবে 


ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি এবং বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেছেন, বর্তমান প্রজন্ম ক্রমেই ইতিহাস বিমুখ হয়ে শেকড়চ্যুত হচ্ছে। এই অশনিসংকেত উত্তরণে সকল কলেজ, পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের ইতিহাস ও মাতৃভাষা বাংলাকে কারিকুলামে অন্তর্ভূক্ত করতে হবে।


শুক্রবার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে বাংলাদেশ ইতিহাস পরিষদ আয়োজিত ৪৭তম বার্ষিক আন্তর্জাতিক সম্মেলনের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

মেনন বলেন, বর্তমান প্রজন্ম ক্রমেই ইতিহাস বিমুখ হয়ে শেকড়চ্যুত হয়ে পড়ছে। বাঙালির গৌরবোজ্জ্বল অতীত তারা জানে না। স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয় সম্পর্কে তাদের ধারণা অতি সামান্য। মাতৃভাষা চর্চার প্রতি এদের অনিহা। অথচ এই দেশের তরুণরাই ৫২’র ভাষা আন্দোলন, ৬২’র শিক্ষা কমিশন আন্দোলন, ৬৯’র গণঅভ্যুত্থান এবং ৭১ এর সম্মুখ সমরের মধ্যদিয়ে স্বাধীন বাংলাদেশ সৃষ্টি করেছে।

বিমানমন্ত্রী বলেন, ইতিহাস সময়ের প্রতিবিম্ব। বর্তমানকে বুঝতে হলে অতীতকে জানতে হবে। ইতিহাস একটি জাতির উত্থান, অগ্রগতি ও বিকাশকে ধারণ করে। উর্বর পলল ভূমির এই ভূখণ্ডের প্রতিটি প্রান্তে ইতিহাসের উপাদান ছড়িয়ে রয়েছে।

তিনি বলেন, আঞ্চলিক ও স্থানীয় গৌরবগাঁথার বিস্মৃত অধ্যায়গুলো ইতিহাসের পাতায় তুলে আনতে হবে। এর মধ্য দিয়ে জাতীয় ইতিহাসের ভীত দৃঢ় হবে। আর ইতিহাসের সৌন্দর্য ও সৌকর্য সবার কাছে তুলে ধরতে মাতৃভাষায় ইতিহাসের চর্চা করতে হবে।

ইতিহাস পরিষদের সহ-সভাপতি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন ইউজিসি’র চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান।

Post A Comment: