প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফরে ভারতের সঙ্গে প্রতিরক্ষাবিষয়ক যে সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে, তাতে দেশের মানুষ শঙ্কিত বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। আজ বুধবার বিকেলে রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এই মন্তব্য করেন খালেদা জিয়া।


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফরে ভারতের সঙ্গে প্রতিরক্ষাবিষয়ক যে সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে, তাতে দেশের মানুষ শঙ্কিত বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

আজ বুধবার বিকেলে রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এই মন্তব্য করেন খালেদা জিয়া।

গত ৭ এপ্রিল চারদিনের রাষ্ট্রীয় সফরে ভারত যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ১০ এপ্রিল সফর শেষে দেশে ফেরেন তিনি। এই সফরে প্রতিরক্ষাসহ বিভিন্ন খাতে ৩৬টি সমঝোতা স্মারক ও চুক্তি সই হয়েছে।

সফরের বিষয়ে গতকাল বিকেলে গণভবনে সংবাদ সম্মেলন করেন প্রধানমন্ত্রী। এর একদিন পর গুলশানের সংবাদ সম্মেলনে একই বিষয় নিয়ে কথা বলেন খালেদা জিয়া।

বিএনপির চেয়ারপারসন বলেন, ‘এই সফরে স্বাক্ষরিত সমঝোতা স্মারকের মাধ্যমে বাংলাদেশের প্রতিরক্ষা প্রশিক্ষণবিষয়ক প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে যেভাবে ভারতের সম্পর্ক প্রাতিষ্ঠানিকীকরণ করা হয়েছে, তার ফলে এসব প্রতিষ্ঠানের সিলেবাস, কারিকুলাম ও অন্যান্য স্পর্শকাতর বিষয়টি অযাচিত হস্তক্ষেপের মুখে পড়তে পারে বলে বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা করছেন।’

‘আমরা উদ্বেগের সঙ্গে আরো লক্ষ করছি যে, দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্য ঘাটতি হ্রাস করার জন্য যে শুল্ক, অশুল্ক বাধাগুলো দূর করা প্রয়োজন, সে বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো পদক্ষেপই গ্রহণ করা হয়নি,’ বলেন খালেদা জিয়া।

Post A Comment: