বড় মনের মানুষ বলেই সবাই চেনেন সালমান খানকে। ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই ভক্তদের উপহার পাঠান এই বলিউড নায়ক। শুধু তাই নয়, দুঃস্থদের সাহায্য করতে নিজের 'বিয়িং হিউম্যান' দাতব্য সংস্থা খুলেছেন তিনি। এবার শোনা যাচ্ছে, নিজের আঁকা ছবি বিক্রির অর্থ তিনি দান করতে যাচ্ছেন চ্যারিটিতে।



বড় মনের মানুষ বলেই সবাই চেনেন সালমান খানকে। ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই ভক্তদের উপহার পাঠান এই বলিউড নায়ক। শুধু তাই নয়, দুঃস্থদের সাহায্য করতে নিজের 'বিয়িং হিউম্যান' দাতব্য সংস্থা খুলেছেন তিনি। এবার শোনা যাচ্ছে, নিজের আঁকা ছবি বিক্রির অর্থ তিনি দান করতে যাচ্ছেন চ্যারিটিতে।

ছবি আঁকা সালমানের নতুন শখ নয়। অনেক আগে থেকেই তিনি ছবি আঁকেন, সেই ছবি নিজের ভক্ত ও সহশিল্পীদের উপহার দিয়ে আসছেন তিনি। কিন্তু এবার তিনি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, নিজের আঁকা ছবি বিক্রি করবেন, আর সেই অর্থ চ্যারিটিতে দান করবেন।

গতবছর এক ব্যবসায়ি ভক্তের কাছে এক কোটি রুপিতে একটি পেইন্টিং বিক্রি করেছিলেন সালমান। এবার তিনি এক বিশাল কালেকশন বিক্রি করবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন। এবং সেই অর্থে সমাজের দুঃস্থদের সাহায্য করবেন সালমান।


সালমানের এক ঘনিষ্ঠ সূত্র সংবাদ মাধ্যমকে জানান, ‘সালমানের ছবিগুলো নায়কের আবেগের কথা বর্ণনা করে। ছবিগুলোতে তিনি তার জীবনের প্রেম, পরিবারের বন্ধন, ধর্ম ও আবেগকে বন্দি করেছেন। এই শখ নিছক ব্যক্তিগত, অর্থ উপার্জন ও খ্যাতি পাওয়ার উৎস নয়। নিজের আনন্দের জন্য ছবি আঁকেন সালমান। তার পরিবারের সদস্য ও বন্ধুরা তাকে ক্যানভাস, রঙ ও ছবি আকার উপকরণ উপহার দেন। সালমান এই কাজকে নিজের জীবনের সেরা কাজ মনে করেন। আর তাই সমাজের উন্নতির জন্য তিনি ছবি বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।’

অবসরে সাদা ক্যানভাসে পেন্সিল দিয়ে, তুলি দিয়ে একা একা গভীর মনোযোগে পেশাদার চিত্রশিল্পীর মতন ছবি আঁকেন সালমান। যখন শুটিং করেন না, তিনি ফিরে যান তার ছবি আকার স্টুডিওতে। কেননা তার ‘প্যাশন’ হলো পেইন্টিং। কখনো আঙ্গুল, তুলি, পেন্সিল দিয়েই বানিয়ে ফেলেন, স্কেচ। যার মধ্যে আছে, ধ্যানমগ্ন বুদ্ধ, কখনও যিশুখ্রিস্টসহ নিজের ছবির পোস্টারের বেশির ভাগই তৈরি হয় তার হাতে আঁকা।

সূত্র- ডেকান ক্রনিকলস

Post A Comment: