ইমার্জিং কাপকে সামনে রেখে আয়োজিত প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে জয় পেয়েছে নাসির হোসেনের নেতৃত্বাধীন লাল দল। বৃহস্পতিবার ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে মাশরাফি বিন মর্তুজার সবুজ দলকে চার উইকেটে হারিয়েছে নাসিররা। এদিন টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ২১১ রান তুলতেই গুটিয়ে যায় মাশরাফির সবুজ দল। ২১২ রান তাড়া করতে নেমে ছয় উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় নাসির হোসেনের দল। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬২ রান করেন ওপেনার সাইফ হাসান।


ইমার্জিং কাপকে সামনে রেখে আয়োজিত প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে জয় পেয়েছে নাসির হোসেনের নেতৃত্বাধীন লাল দল। বৃহস্পতিবার ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে মাশরাফি বিন মর্তুজার সবুজ দলকে চার উইকেটে হারিয়েছে নাসিররা।

এদিন টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ২১১ রান তুলতেই গুটিয়ে যায় মাশরাফির সবুজ দল। ২১২ রান তাড়া করতে নেমে ছয় উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় নাসির হোসেনের দল। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬২ রান করেন ওপেনার সাইফ হাসান।

এছাড়া দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫১ রান এসেছে অধিনায়ক নাসিরের ব্যাট থেকে। সাইফের ৬২ ও নাসিরের অপরাজিত ৫১ রানে ভর করে ৩৭.৩ ওভারেই জয় তুলে নেয় লাল দল। এছাড়াও আফিফ হোসেন ২৭ ও সানজামুল ইসলামের ব্যাট থেকে আসে অপরাজিত ২৪ রান।
+
সবুজ দলের হয়ে বল হাতে দুটি করে উইকেট নেন খালেদ আহমেদ ও এবাদাত হোসেন। এছাড়া সাইফ উদ্দিন ও কাজী অনিক নিয়েছেন একটি করে উইকেট। তবে আট ওভারে ৪৫ রান দিয়েও উইকেটশুন্য থেকেছেন অধিনায়ক মাশরাফি।

এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা মোটেই ভালো হয়নি সবুজ দলের। মাত্র ১১ রান তুলতেই টপ অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যানকে হারায় তারা। মেহেদি মারুফ (১), এনামুল হক বিজয় (১) ও তুষার ইমরান (০) দ্রুত বিদায় নিলে চাপে পড়ে মাশরাফির দল।

৫৭ রানের এক দায়িত্বশীল ইনিংস খেলে দলকে টেনে তোলেন মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান জাকির হোসেন। এরপর নাঈম ইসলাম জুনিয়রের ৩৩, ওপেনার আজমীর আহমেদের ২৯, সালমান হোসেনের ২৫ এবং মাশরাফি ও রাহাতুল ফেরদৌসের ১৯ রানে সবক’টি উইকেট হারিয়ে ২১১ রানের দলীয় সংগ্রহ দাঁড় করায় মাশরাফির দল।

লাল দলের পক্ষে দু'টি করে উইকেট নিয়েছেন আবুল হাসান রাজু, আবু হায়দার রনি ও মেহেদি হাসান। এছাড়া নাসির হোসেন, সানজামুল ইসলাম, শফিউল ইসলাম ও নাসুম আহমেদ নিয়েছেন একটি করে উইকেট।

Post A Comment: