র‌্যাবের হাতে গ্রেফতারের পর মো. হানিফ মৃধার মৃত্যুর বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে ব্যাখ্যা দাবি করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ২০ মার্চ সোমবার দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় মির্জা ফখরুল এই ব্যাখ্যা দাবি করেন।


র‌্যাবের হাতে গ্রেফতারের পর মো. হানিফ মৃধার মৃত্যুর বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে ব্যাখ্যা দাবি করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।


২০ মার্চ সোমবার দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় মির্জা ফখরুল এই ব্যাখ্যা দাবি করেন।


মির্জা ফখরুল বলেন, হানিফের পরিবার বলছে, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি ডিবি পরিচয়ে কয়েকজন লোক নারায়ণগঞ্জের কাঁচপুর এলাকা থেকে তাকে ধরে নিয়ে যায়। অন্যদিকে র‌্যাবের দাবি, আশকোনায় র‌্যাবের ফোর্সেস ব্যারাকে আত্মঘাতী হামলার দিন সন্দেহভাজন হিসেবে হানিফকে গ্রেফতার করা হয়। র‌্যাব অফিসে নেয়ার পর তার বুকে ব্যথা শুরু হলে তাকে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানেই তার মৃত্যু হয়।


এ সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে ব্যাখ্যা দাবি করে বিএনপির এই নেতা বলেন, কোনটি সত্য? র‍্যাবের ব্যাখ্যা সেটি সত্য, নাকি পরিবারের দাবি সত্য? যদি পরিবারের দাবি সত্য হয়ে থাকে, তাহলে আমরা কোন দেশে বাস করছি? সরকারের একটি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, যাদের দায়িত্ব হচ্ছে জনগণের নিরাপত্তা দেওয়া, সঠিক তথ্য জাতির কাছে তুলে ধরা, তাহলে এটা কী?


এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত দাবি করে মির্জা ফখরুল বলেন, একটা নয়, অসংখ্য ঘটনা এ রকম ঘটছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী বলেছ এক কথা, পরিবার বলছে তুলে নেওয়া হয়েছে। পরিবারগুলোর দাবি যদি সঠিক হয়, তাহলে কি আমরা এই দাবি করতে পারি যে একটা অত্যন্ত গভীর ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে।


‘এই লোকগুলোকে তুলে নিয়ে গিয়ে পরবর্তী সময়ে তাদের জঙ্গি বানিয়ে হত্যা করা হচ্ছে বা জঙ্গিবাদকে প্রকাশ করার জন্য তাদের ব্যবহার করা হচ্ছে? এটা কিন্তু খুব গুরুতর প্রশ্ন।’, যোগ করেন তিনি।


ন্যাশনাল পিপলস পার্টির চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন- বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, জাতীয় পার্টি (কাজী জাফর) মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার, জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান, ন্যাপ ভাসানীর চেয়ারম্যান আজহারুল ইসলাম, ডেমোক্রেটিক লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দীন আহমেদ মনি, এনপিপির মহাসচিব মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তফা প্রমুখ।


Post A Comment: