বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে বড় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের সহ-প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ ফেসবুক তৈরি করতে গিয়ে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ড্রপআউট হয়েছিলেন। আর মে মাসে অনুষ্ঠিতব্য হার্ভার্ডের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে তিনি এক যুগ পর গ্রাজুয়েশন ডিগ্রী আনতে যাচ্ছেন। এ ছাড়া তিনি হার্ভার্ডের ইতিহাসে সবচেয়ে কনিষ্ঠ বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখতে যাচ্ছেন। হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে এসব তথ্য জানানো হয়। তা ছাড়া নিজের ফেসবুক পেজে পোস্ট করা এক ভিডিওতে একই তথ্যই জানিয়েছেন স্বয়ং জাকারবার্গ। ওই ভিডিওতে দেখা গেছে, শিক্ষাজীবনের মাঝপথে হার্ভার্ড থেকে ‘ড্রপ আউট’ আরেক কিংবদন্তি মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা ও বিশ্বের সবচে ধনী মানুষ বিল গেটসকে।

বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে বড় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের সহ-প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ ফেসবুক তৈরি করতে গিয়ে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ড্রপআউট হয়েছিলেন। আর মে মাসে অনুষ্ঠিতব্য হার্ভার্ডের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে তিনি এক যুগ পর গ্রাজুয়েশন ডিগ্রী আনতে যাচ্ছেন। এ ছাড়া তিনি হার্ভার্ডের ইতিহাসে সবচেয়ে কনিষ্ঠ বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখতে যাচ্ছেন। 


হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে এসব তথ্য জানানো হয়। তা ছাড়া নিজের ফেসবুক পেজে পোস্ট করা এক ভিডিওতে একই তথ্যই জানিয়েছেন স্বয়ং জাকারবার্গ। ওই ভিডিওতে দেখা গেছে, শিক্ষাজীবনের মাঝপথে হার্ভার্ড থেকে ‘ড্রপ আউট’ আরেক কিংবদন্তি মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা ও বিশ্বের সবচে ধনী মানুষ বিল গেটসকে।

ভিডিওটিতে দেখা যায়, জাকারবার্গের হাতে থাকা মোবাইলে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনে আমন্ত্রণের একটি ম্যাসেজ আসে। তিনি বিল গেটসকে জিজ্ঞাসা করেন, ‘২০০৭ সালে আপনি বক্তৃতা দিয়েছিলেন। ওই বছরই প্রিসিলা (জুকারবার্গের স্ত্রী) স্নাতক হয়েছিল।’


জবাবে বিল গেটস হেসে বলেন, ‘হ্যাঁ, আমি সেখানে ছিলাম। ৩০ বছরেরও বেশি সময় লেগেছিল সেখানে যেতে।’ এরপর জাকারবার্গের প্রশ্ন, ‘ওরা নিশ্চয়ই জানে, আমরা স্নাতক নই?’ গেটস উত্তরে বলেন, ‘আসলে সবচে ভালো ব্যাপারটি হলো তোমাকে ওরা ডিগ্রি দিতে যাচ্ছে।’ তখন জাকারবার্গ বলেন, ‘আমাকে কোনো ক্লাস করতে হবে না তো?’ তখন গেটস বলেন, ‘না, এটা হলো- তুমি তোমার রেজুমিতে এই ডিগ্রী ব্যবহার করতে পারছ।’


সূত্র: জাকারবার্গের ফেসবুক পোস্ট

Post A Comment: