মোহাম্মদ আশরাফুল। বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান। টেস্ট ক্রিকেটে সবচেয়ে কম বয়সে সেঞ্চুরি করার রেকর্ডটি তার দখলেই। ২০০১ সালের ৮ সেপ্টেস্বর ১৭ বছর ৬১ দিন বয়সে অভিষেক টেস্টে সেঞ্চুরি করে বিশ্ব ক্রিকেটে অনন্য এক নজির স্থাপন করেছিলেন আশরাফুল। কলম্বোর সিংহলিজ স্পোর্টস ক্লাব মাঠে শ্রীলঙ্কার মুরালি-ভাসদের মতো ভয়ংকর বোলারদের সামনে কলম্বো টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে আশরাফুল খেলেন ২১২ বলে ১১৪ রানের স্মরণীয় এক ইনিংস। বাংলাদেশ ক্রিকেট দল আজ খেলছে তাদের ১০০তম টেস্ট ম্যাচ। ১০০তম টেস্ট ম্যাচে এসে টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশ ক্রিকেট টিমের সফলতা-ব্যর্থতা নিয়ে ভিন্ন খবর এর সঙ্গে কথা হলো আশরাফুলের।

   মোহাম্মদ আশরাফুল। বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান। টেস্ট ক্রিকেটে সবচেয়ে কম বয়সে সেঞ্চুরি করার রেকর্ডটি তার দখলেই। ২০০১ সালের ৮ সেপ্টেস্বর ১৭ বছর ৬১ দিন বয়সে অভিষেক টেস্টে সেঞ্চুরি করে বিশ্ব ক্রিকেটে অনন্য এক নজির স্থাপন করেছিলেন আশরাফুল। কলম্বোর সিংহলিজ স্পোর্টস ক্লাব মাঠে শ্রীলঙ্কার মুরালি-ভাসদের মতো ভয়ংকর বোলারদের সামনে কলম্বো টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে আশরাফুল খেলেন ২১২ বলে ১১৪ রানের স্মরণীয় এক ইনিংস। বাংলাদেশ ক্রিকেট দল আজ খেলছে তাদের ১০০তম টেস্ট ম্যাচ। ১০০তম টেস্ট ম্যাচে এসে টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশ ক্রিকেট টিমের সফলতা-ব্যর্থতা নিয়ে ভিন্ন খবর এর সঙ্গে কথা হলো আশরাফুলের।

কেমন আছেন?

আশরাফুল: এই তো, ভালো আছি ভাই।

আজ তো বাংলাদেশ ক্রিকেট দল তাদের ১০০তম টেস্ট ম্যাচ খেলছে। ১০০তম টেস্ট খেলার পর একটি ক্রিকেট দলের যে স্ট্যান্ডার্ডে যাওয়ার উচিত ছিল, আমরা কি সেই স্ট্যান্ডার্ডে যেতে পেরেছি?

আশরাফুল: জয়-পরাজয়ের হিসেবে হয়তো যেতে পারিনি, কিন্তু আমাদের বেশ উন্নতি হয়েছে। যে স্ট্যান্ডার্ডের কথা বললেন সেখানে যেতে পারতাম যদি আমরা টেস্ট ম্যাচগুলো নিয়মিত খেলতে পারতাম। মানে বছরে অন্তত ৬ টি করে। হ্যাঁ, আমরা ১৭ বছরে ১০০ টেস্ট ম্যাচ খেলে ফেলেছি। কিন্তু দেখা গিয়েছে আমাদেরকে অনেক সময় ১৬-১৭ মাস অপেক্ষা করতে হয়েছে একটি টেস্ট ম্যাচের পর আরেকটি টেস্ট ম্যাচ খেলতে। মানে আমি বলছি যে যদি ধারাবাহিকভাবে আমরা টেস্ট ম্যাচগুলো খেলতে পারতাম, যদি দীর্ঘ গ্যাপগুলো না থাকত, তাহলে আমরা আরও ভালো করতে পারতাম। তবে আমাদের বর্তমান টিম কিন্তু সঠিক রাস্তায়ই এগিয়ে যাচ্ছে।

গ্যাপ পড়া সংক্রান্ত সমস্যা ছাড়া আর কোনো ঘাটতি কি নেই?

আশরাফুল: আমার মনে হয় আমরা যদি আমাদের ডমেস্টিক ক্রিকেটকে আরও ভালোভাবে সাজিয়ে তুলতে পারতাম তাহলে আমরা আরও ভালো করতে পারতাম।

আমাদের টেস্ট ক্রিকেটে যে ব্যাটিং অর্ডার রয়েছে, সেখানে কোনো ঘাটতি বা কমতি আছে বলে মনে হয় আপনার?

আশরাফুল: ব্যাটিং অর্ডার পারফেক্ট আছে। সবচেয়ে ভালো হতো মুশফিক যদি চার নম্বরে ব্যাট করতে নামত। ও অনেকদিন ক্যাপ্টেন ছিল, তখনই ওকে চার নম্বরে নেমে খেলা উচিত ছিল। অবশ্য একটি দীর্ঘ ইনিংস উইকেটকিপিং করে এসে তারপর চার নম্বরে খেলা যদিও একটু কঠিন। তবে আমার মনে হয় ও চার নম্বরে খেললেই ভালো হতো।

টেস্টে আমাদের বোলিং নিয়ে আপনার মতামত কী?

আশরাফুল: আমাদের বোলিং ইউনিট দুর্বল। অভিজ্ঞ বোলার নেই। অভিজ্ঞ বোলার নিয়ে বোলিং ইউনিট করলে সুফল পাওয়া যেত। অভিজ্ঞদের দিকে নজর দিতে হবে। বারবার নতুন মুখ নিয়ে এলে হবে না, অভিজ্ঞদের নিয়ে বোলিং ইউনিট তৈরি করলে ভালো হবে বলে আমি মনে করি।

জয়-পরাজয়ের হিসেব না হয় থাকলো। ১০০ টেস্ট ম্যাচ খেলে আমাদের অর্জন কি?

আশরাফুল: দেখুন আমরা আগে দুই আড়াই দিনেই ম্যাচ হারতাম, এখনও হারি কিন্তু টানা পাঁচ দিন টিকে থাকার পর। দলীয়ভাবে এটাই আমাদের অর্জন। এছাড়াও যার যার ব্যক্তিগত অর্জন তো রয়েছেই।

আমরা অনেকাংশেই জয়ের দ্বারপ্রান্তে গিয়ে হেরে যাচ্ছি। ১০০ টেস্ট ম্যাচ খেলার পরও কি এই পরাজয়ের কারণ হিসেবে অভিজ্ঞতার অভাবকে দায়ী করা উচিত হবে?

আশরাফুল: অভিজ্ঞতার অভাব তো একটা রয়েছেই। এছাড়াও লম্বা ইনিংস খেলার অভ্যাস নেই অনেকেরই। খেলোয়াড়দের জন্য ভালো হতো যদি তারা ফার্স্ট ক্লাস খেলায় অভ্যস্ত হতো।

বর্তমানে আমাদের যে টেস্ট ক্রিকেট দল আছে, এ দলের ওপর আপনার ব্যক্তিগত আস্থা কতটুকু?

আশরাফুল: এই টিম দিয়েই হবে। এই টিম দিয়েই আমরা বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল খেলে এসেছি। আমাদের ভবিষ্যৎ ভালো। এখন কেবল মাত্র যারা দায়িত্বশীল তাদেরকে একটু চিন্তাশীল হতে হবে। যে যেই দায়িত্বেই আছেন, তাকে সে জায়গা থেকেই চিন্তাশীল হতে হবে। যারা ডমেস্টিকে ভালো খেলছে তাদের দিকে নজর দিতে হবে।

টেস্ট ক্রিকেটে সবচেয়ে কম বয়সে সেঞ্চুরি করার রেকর্ডের অধিকারী আপনি। কিন্তু বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ১০০তম টেস্ট ম্যাচে আপনি নেই। এ বিষয়ে আপনার মনে কোনো ব্যথা বোধ করেন কি?

আশরাফুল: সবাই যে সবকিছু পাবে তাতো নয়। সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে আমাদের টিম ১০০তম টেস্ট খেলছে- এটাই অনেক গর্বের। তবে আমি খেলতে পারলে সেটা অবশ্যই আমার জন্য আনন্দের হতো। তবে বাস্তবতাকে তো মেনে নিতেই হবে। আমি বিশ্বাস করি আমি আবার ফিরে আসতে পারব।

আমার শেষ প্রশ্ন, শ্রীলংকার সঙ্গে চলতি টেস্ট ম্যাচে বাংলাদেশ জিতেবে নাকি হারবে বলে আপনার অনুমান?

আশরাফুল: আমরা তো ভালো অবস্থানে আছি। ভালো ব্যাটিং করতে পারলে জয়ের সম্ভাবনা রয়েছে।

Post A Comment: