শিল্পী ও বাদক হিসেবে খ্যাতি পেয়েছেন এমন অনেকেই আছেন সঙ্গীতাঙ্গনে। এমনই বেশ কজন মিউজিশিয়ানের গাওয়া গান নিয়ে একটি অ্যালবাম প্রকাশিত হতে যাচ্ছে। এই অ্যালবামের প্রধান চমক হচ্ছে অ্যালবামের গানগুলো গাইবেন দেশ সেরা ড্রামাররা। নগর বাউল ব্যান্ডের ড্রামার ইমতিয়াজ আলী জিমির তত্বাবধানে ও জিয়া খানের সুরে অ্যালবামটির গান তৈরি শুরু হয়েছে। সঙ্গীতায়োজনে থাকবেন জিয়া ও জিমি। পরিবর্তন ডটকমকে এমনটিই জানিয়েছেন জিয়া খান। পিলু খান, পান্থ কানাই, ইমতিয়াজ আলী জিমি, গোলামুর রহমান রোমেল, রাফা ও মিঠুন চক্রর গান দিয়ে সাজানো হবে অ্যালবামটি।


শিল্পী ও বাদক হিসেবে খ্যাতি পেয়েছেন এমন অনেকেই আছেন সঙ্গীতাঙ্গনে। এমনই বেশ কজন মিউজিশিয়ানের গাওয়া গান নিয়ে একটি অ্যালবাম প্রকাশিত হতে যাচ্ছে। এই অ্যালবামের প্রধান চমক হচ্ছে অ্যালবামের গানগুলো গাইবেন দেশ সেরা ড্রামাররা।

নগর বাউল ব্যান্ডের ড্রামার ইমতিয়াজ আলী জিমির তত্বাবধানে ও জিয়া খানের সুরে অ্যালবামটির গান তৈরি শুরু হয়েছে। সঙ্গীতায়োজনে থাকবেন জিয়া ও জিমি। পরিবর্তন ডটকমকে এমনটিই জানিয়েছেন জিয়া খান। পিলু খান, পান্থ কানাই, ইমতিয়াজ আলী জিমি, গোলামুর রহমান রোমেল, রাফা ও মিঠুন চক্রর গান দিয়ে সাজানো হবে অ্যালবামটি।


এ প্রসঙ্গে জিয়া খান পরিবর্তনকে বলেন, “বেশ কিছুদিন আগে এক আড্ডায় নগরবাউণের ড্রামার জিমি ও এলআরবি’র রোমেল আমাকে কয়েকজন ড্রামার নিয়ে ভিন্নধর্মী গানের অ্যালবাম আয়োজনের দায়িত্ব দেন! অনেকদিন কাজ বন্ধ থাকার পর সম্প্রতি কিছু মিউজিক ট্র্যাক রেডি করে প্রজেক্টটা আবার অন করলাম। আশা করছি, সবার সাপোর্ট নিয়ে ঈদুল ফিতরে অ্যালবামটি শ্রোতাদের হাতে তুলে দিকে পারব।”


এদিকে জিমি বলেন, ‘শ্রোতারা গতানুগতিক ধারার বাইরে একটি অ্যালবাম পাবেন। ১৯৯০-এর দশকের দিকে আমাদের ব্যান্ডদলগুলো মিক্সড অ্যালবাম প্রকাশ করত। যার ভয়েসের সাথে যেমন গান মানানসই সবদিক বিবেচনা করে তেমন গানই করা হবে এ অ্যালবামে।’


২০১৬ সালের ঈদুল ফিতরে বাজারে আসে জিয়া খানের সুরে মিশ্র অ্যালবাম ‘ছায়া শরীরী’। অ্যালবামটিতে কণ্ঠ দিয়েছিলেন ব্যান্ড কিংবদন্তি আইয়ুব বাচ্চু, তপু, বালাম, কোনাল, জিয়া খান, ভারতের রূপম ইসলাম ও রাঘব চ্যাটার্জি। ওই বছরে আলোচিত মিশ্র অ্যালবামের অন্যতম ছিল এটি। সব মিলিয়ে আবারো জিয়া ও জিমির নতুন চমকের অপেক্ষায় রয়েছে অডিও বাজার।

Post A Comment: