গত বছরের সেপ্টেম্বরে ভেঙে যায় অ্যাঞ্জেলিনা জোলি ও ব্র্যাড পিটের সাজানো সংসার। ছয় সন্তান নিয়ে আলাদা হয়ে যাওয়ার পাশাপাশি বিবাহ বিচ্ছেদের আবেদন করেন জোলি। তারপর থেকেই মুখ দেখাদেখি বন্ধ সাবেক এই দম্পতির। শোনা যাচ্ছে, বিচ্ছেদের এতটা সময় পর আবারও নাকি একে অপরের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছেন তারা। অন্তত বিদেশি গণমাধ্যম তো তাই বলছে।

গত বছরের সেপ্টেম্বরে ভেঙে যায় অ্যাঞ্জেলিনা জোলি ও ব্র্যাড পিটের সাজানো সংসার। ছয় সন্তান নিয়ে আলাদা হয়ে যাওয়ার পাশাপাশি বিবাহ বিচ্ছেদের আবেদন করেন জোলি। তারপর থেকেই মুখ দেখাদেখি বন্ধ সাবেক এই দম্পতির। শোনা যাচ্ছে, বিচ্ছেদের এতটা সময় পর আবারও নাকি একে অপরের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছেন তারা। অন্তত বিদেশি গণমাধ্যম তো তাই বলছে।

সাবেক বিচ্ছিন্ন দম্পতির একটি ঘনিষ্ঠ সূত্র জানায়, অ্যাঞ্জেলিনা জোলি ও ব্র্যাড পিটের মধ্যে শীতলতা কমতে চলেছে বলে ধারণা করা যাচ্ছে। কিছুদিন আগের মত অশান্ত নেই আর তাদের সম্পর্ক। তবে তার মানে এই না, তারা সম্পর্কে ফিরছেন। শুধুমাত্র সন্তানদের ভবিষ্যতের স্বার্থে একে অন্যের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন ব্র্যাঞ্জেলিনা।

সূত্রটি আরও জানায়, সন্তানদের জন্য যা কিছু ভালো, তারা সেটিই করবেন। ব্র্যাড সন্তানদের সঙ্গে অনেক বেশি সময় কাটাতে চান। তিনি বর্তমানে খুব স্বাস্থ্য সচেতন ও সুস্থ জীবনযাপন করার চেষ্টা করছেন।

ওদিকে, জোলি ও পিটের সন্তানদের থেরাপিস্ট জানিয়েছেন, একে অন্যের সঙ্গে যেন যোগাযোগ রাখেন তারা। তবে তাদের মধ্যে যোগাযোগটা ঠিক কেমন হচ্ছে, এই প্রশ্নের জবাবে পিটের এক ঘনিষ্ঠ সূত্র জানায়, সীমিত যোগাযোগ হচ্ছে দুজনের। তবে সম্পূর্ণ যোগাযোগই ইতিবাচক। তারা একে অপরের সঙ্গে কথা বলা শুরু করেছেন। এবং এটিই সম্পর্কের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ধাপ। যদিও এখনও আইনজীবী ও সহকারীদের মাধ্যমে যোগাযোগ করছেন তারা।

শোনা যায়, বিমানে ছেলের গায়ে হাত তোলার ঘটনার পর থেকেই ব্র্যাড পিটের সঙ্গে কথা বলা বন্ধ করেছেন জোলি। তারপর থেকেই সম্পর্কে টানাপড়েন শুরু হয়, এবং বিচ্ছেদের আবেদন করেন হলিউড অভিনেত্রী। কিন্তু সফল মা বাবা হিসেবে ও সন্তানদের প্রতি দায়িত্বের কারণে আবারও যদি এক হন এই দম্পতি, তবে তাতে অবাক হওয়ার কিছু নেই!

সূত্র- ডেকান ক্রনিকলস

Post A Comment: