নারী নির্যাতন মামলায় এক মাসের জামিন পেয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটার আরাফাত সানি। বৃহস্পতিবার তাকে এই জামিনের আদেশ দেয় আদালত। আরাফাত সানির বিরুদ্ধে মোট তিনটি মামলা দায়ের করা হয়েছিল, যার মাত্র একটিতে জামিন পেলেন তিনি। তবে একটি শর্তে জামিন দেয়া হয়েছে সানিকে। মামলার বাদী নাসরিন সুলতানাকে স্ত্রী হিসেবে মেনে নিয়ে ঘরসংসার করবেন এমন প্রতিশ্রুতি দেয়ার পর নারী ও শিশু নির্যাতন আইনের মামলায় সানিকে এক মাসের অন্তর্বর্তী জামিন দিয়েছেন আদালত।


নারী নির্যাতন মামলায় এক মাসের জামিন পেয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটার আরাফাত সানি। বৃহস্পতিবার তাকে এই জামিনের আদেশ দেয় আদালত। আরাফাত সানির বিরুদ্ধে মোট তিনটি মামলা দায়ের করা হয়েছিল, যার মাত্র একটিতে জামিন পেলেন তিনি।

তবে একটি শর্তে জামিন দেয়া হয়েছে সানিকে। মামলার বাদী নাসরিন সুলতানাকে স্ত্রী হিসেবে মেনে নিয়ে ঘরসংসার করবেন এমন প্রতিশ্রুতি দেয়ার পর নারী ও শিশু নির্যাতন আইনের মামলায় সানিকে এক মাসের অন্তর্বর্তী জামিন দিয়েছেন আদালত।

গেল পাঁচ জানুয়ারি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নাসরিন সুলতানার আপত্তিকর ছবি প্রকাশের অভিযোগে সানির বিরুদ্ধে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মামলা হয়। সানির স্ত্রী দাবী করা নাসরিন নিজেই এই মামলা করেন। 

পরবর্তীতে তদন্তের স্বার্থে বিজ্ঞ আদালতের কাছে একদিনের রিমান্ডের আবেদন করে পুলিশ। রিমান্ড মঞ্জুর হলেও নিজের উপর আনা অভিযোগ অস্বীকার করেন এবং ঘটনাটি অতিরঞ্জিত বলে দাবী করেন সানি। যদিও ওই নারী তার পরিচিত; ব্যাপারটা স্বীকার করেছেন বাংলাদেশের বাঁ-হাতি এই স্পিনার। তার পরদিনই সানিকে জেলে পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়।

তথ্যপ্রযুক্তি আইনের পাশাপাশি আরও একটি মামলা করেন নাসরীন সুলতানা। যেখানে তিনি অভিযোগ করেছেন, তার কাছে ২০ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবি করেছেন সানি ও তার মা নার্গিস আক্তার।

তৃতীয় মামলাটি করা হয় শিশু ও নারী নির্যাতন আইনে। এই মামলায় এক মাসের জামিন দেওয়া হলো সানিকে। তবে বাকী মামলাগুলোর তদন্ত চলছে। যার প্রতিবেদন আদালতের কাছে জমা দেওয়া হবে ছয় এপ্রিল।  

Post A Comment: