সাদা পোশাকে বাংলাদেশের তরুণ পেস সেনসেশন মুস্তাফিজুর রহমানের অভিষেক ঘরের মাঠে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে। দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথমটিতে বল হাতে চার উইকেট নেয়ার পাশাপাশি ব্যাট হাতে করেছিলেন তিন রান। তবে বৃষ্টির কারণে ম্যাচ পরিত্যক্ত হওয়ায় দ্বিতীয় টেস্টে মাঠে নামার সুযোগই হয়নি বাঁ-হাতি এই পেসারের। ২০১৫ সালের জুলাইয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের পর বাংলাদেশ খেলেছে মোট তিনটি টেস্ট সিরিজ। কিন্তু মাঠে নামা হয়নি মুস্তাফিজের। চোটের কারণে দর্শক হয়ে দেখেছেন ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড ও ভারতের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ। এর মধ্যে ইংলিশদের বিপক্ষে সিরিজটি ঘরের মাঠেই ছিল। ইনজুরি থেকে ফিরে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি খেললেও লংগার ভার্সনে মাঠে নামা থেকে বিরত থাকতে হয়েছে বাঁ-হাতি এই পেসারকে। যেখানে ১৫টি টি-টোয়েন্টি ও ১১টি ওয়ানডে খেলেছেন মুস্তাফিজ, সেখানে গল টেস্ট তার ক্যারিয়ারের মাত্র তৃতীয় টেস্ট। এখন পর্যন্ত ওয়ানডেতে তার ঝুলিতে জমা পড়েছে ৩০টি, টি-টোয়েন্টিতে ২৩টি এবং টেস্টে ৪টি উইকেট।


 সাদা পোশাকে বাংলাদেশের তরুণ পেস সেনসেশন মুস্তাফিজুর রহমানের অভিষেক ঘরের মাঠে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে। দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথমটিতে বল হাতে চার উইকেট নেয়ার পাশাপাশি ব্যাট হাতে করেছিলেন তিন রান। তবে বৃষ্টির কারণে ম্যাচ পরিত্যক্ত হওয়ায় দ্বিতীয় টেস্টে মাঠে নামার সুযোগই হয়নি বাঁ-হাতি এই পেসারের।

২০১৫ সালের জুলাইয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের পর বাংলাদেশ খেলেছে মোট তিনটি টেস্ট সিরিজ। কিন্তু মাঠে নামা হয়নি মুস্তাফিজের। চোটের কারণে দর্শক হয়ে দেখেছেন ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড ও ভারতের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ। এর মধ্যে ইংলিশদের বিপক্ষে সিরিজটি ঘরের মাঠেই ছিল।

ইনজুরি থেকে ফিরে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি খেললেও লংগার ভার্সনে মাঠে নামা থেকে বিরত থাকতে হয়েছে বাঁ-হাতি এই পেসারকে। যেখানে ১৫টি টি-টোয়েন্টি ও ১১টি ওয়ানডে খেলেছেন মুস্তাফিজ, সেখানে গল টেস্ট তার ক্যারিয়ারের মাত্র তৃতীয় টেস্ট। এখন পর্যন্ত ওয়ানডেতে তার ঝুলিতে জমা পড়েছে ৩০টি, টি-টোয়েন্টিতে ২৩টি এবং টেস্টে ৪টি উইকেট।



এমনিতে গল ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়াম যেন সিংহের ডেরা। এখানে খেলা ২৮টি টেস্ট ম্যাচে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা ১৬টিতেই জিতেছে, হেরেছে ছয়টিতে। আর ড্র হয়েছে বাকি ছয়টি ম্যাচ। তবে এই মাঠে কখনই টেস্ট হারেনি সফরকারী বাংলাদেশ। তার উপর দেড় বছরের বেশি সময় পর মুস্তাফিজকে দলে পাওয়ায় বেশ উজ্জীবিত মুশফিকবাহিনী। 


দেখার বিষয়, মুস্তাফিজের ফেরার এই ম্যাচে সিংহের ডেরায় নিজেদের না হারার রেকর্ড অটুট রাখতে পারে কিনা মুশফিকুর রহিমের দল।

Post A Comment: