পেশোয়ার জালমি পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) ফাইনালে জায়গা করে নিলেও থাকছেন না অলরাউন্ডার শহীদ আফ্রিদি। ফাইনালে ওঠার ম্যাচে হাতের ইনজুরিতে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে পড়েছেন পাকিস্তান জাতীয় দলের সাবেক এই অধিনায়ক। একদিন বাদেই লাহোরে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে পিএসএলের ফাইনাল ম্যাচ। আগের দিন শুক্রবার সংযুক্ত আরব আমিরাতে তৃতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে করাচি কিংসের বিপক্ষে খেলতে গিয়ে ডান হাতে ব্যথা পান তিনি। এই ইনজুরির কারণে ১০ দিন মাঠের বাইরে থাকতে হচ্ছে তাকে। সেক্ষেত্রে ফাইনাল ম্যাচে মাঠের বাইরেই কাটাবেন আফ্রিদি। এক ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, ‘আমি পাঁচ মার্চ পিএসএলের ফাইনালে খেলতে পারবো না। আমাকে ডাক্তার ১০ দিনের বিশ্রাম দিয়েছে। টুর্নামেন্টটা আমার জন্য বড় চ্যালেঞ্জ ছিলো। কারণ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর আমি ভাবিনি যে ভক্তদের আবারও ভালো পারফরম্যান্স উপহার দিতে পারবো। আশা করি পিএসএলে আমার পারফরম্যান্সে ভক্তরা খুশি।’ ক্যারিয়ারের খুব বাজে সময় কাটাচ্ছেন সাবেক এই অধিনায়ক। জাতীয় দল থেকে বাদ পড়ার পর থেকে বিদায়ী ম্যাচের কথা বলা হলেও শেষপর্যন্ত তা হয়নি। পরবর্তীতে পিএসএল চলাকালীন সময়েই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলেন তিনি। জানিয়েছিলেন, ঘরোয়া ক্রিকেট চালিয়ে যাবেন। তারই ধারাবাহিকতায়, পিএসএল ফাইনাল নিয়ে দারুণ আগ্রহ ছিলো আফ্রিদির। একে তো ঘরের মাঠে খেলা, সঙ্গে আবারও পারফর্ম করতে পারা। সবমিলিয়ে উচ্ছ্বাসিত ছিলেন আফ্রিদি। কিন্তু দুর্ভাগ্য তার, ইনজুরির কারণে সেটা হচ্ছে না। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন। ‘লাহোরে অনুষ্ঠিতব্য পিএসএলের ফাইনাল ম্যাচ খেলার জন্য খুব আগ্রহ ছিলো। নিজেদের সমর্থকদের সামনে খেলতে পারা সবসময়ই দারুণ কিছু। কিন্তু আমার হাতে তো কিছু নেই।’


  পেশোয়ার জালমি পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) ফাইনালে জায়গা করে নিলেও থাকছেন না অলরাউন্ডার শহীদ আফ্রিদি। ফাইনালে ওঠার ম্যাচে হাতের ইনজুরিতে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে পড়েছেন পাকিস্তান জাতীয় দলের সাবেক এই অধিনায়ক।

একদিন বাদেই লাহোরে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে পিএসএলের ফাইনাল ম্যাচ। আগের দিন শুক্রবার সংযুক্ত আরব আমিরাতে তৃতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে করাচি কিংসের বিপক্ষে খেলতে গিয়ে ডান হাতে ব্যথা পান তিনি। এই ইনজুরির কারণে ১০ দিন মাঠের বাইরে থাকতে হচ্ছে তাকে। সেক্ষেত্রে ফাইনাল ম্যাচে মাঠের বাইরেই কাটাবেন আফ্রিদি।

এক ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, ‘আমি পাঁচ মার্চ পিএসএলের ফাইনালে খেলতে পারবো না। আমাকে ডাক্তার ১০ দিনের বিশ্রাম দিয়েছে। টুর্নামেন্টটা আমার জন্য বড় চ্যালেঞ্জ ছিলো। কারণ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর আমি ভাবিনি যে ভক্তদের আবারও ভালো পারফরম্যান্স উপহার দিতে পারবো। আশা করি পিএসএলে আমার পারফরম্যান্সে ভক্তরা খুশি।’

ক্যারিয়ারের খুব বাজে সময় কাটাচ্ছেন সাবেক এই অধিনায়ক। জাতীয় দল থেকে বাদ পড়ার পর থেকে বিদায়ী ম্যাচের কথা বলা হলেও শেষপর্যন্ত তা হয়নি। পরবর্তীতে পিএসএল চলাকালীন সময়েই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলেন তিনি। জানিয়েছিলেন, ঘরোয়া ক্রিকেট চালিয়ে যাবেন।

তারই ধারাবাহিকতায়, পিএসএল ফাইনাল নিয়ে দারুণ আগ্রহ ছিলো আফ্রিদির। একে তো ঘরের মাঠে খেলা, সঙ্গে আবারও পারফর্ম করতে পারা। সবমিলিয়ে উচ্ছ্বাসিত ছিলেন আফ্রিদি। কিন্তু দুর্ভাগ্য তার, ইনজুরির কারণে সেটা হচ্ছে না।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন। ‘লাহোরে অনুষ্ঠিতব্য পিএসএলের ফাইনাল ম্যাচ খেলার জন্য খুব আগ্রহ ছিলো। নিজেদের সমর্থকদের সামনে খেলতে পারা সবসময়ই দারুণ কিছু। কিন্তু আমার হাতে তো কিছু নেই।’

Post A Comment: