আপনার পানির তৃষ্ণা লাগতে পারে যেকোন সময়। দেখা যায় রাতে পানি খেয়ে কিছু অংশ রেখে দিলেন এবং সেটা সকালে বা ঘুম থেকে উঠে খেলেন। এর স্বাস্থ্যঝুঁকি নিয়ে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। আপনি হয়তোবা জানেন যে, পানি খেয়ে পানির গ্লাস ঢেকে না রাখা অস্বাস্থ্যকর। ময়লা, ধূলিকণা এমনকি মশার ডিম বা মশা ইত্যাদি সারা রাত আপনার গ্লাসে পড়তে পারে, যদি আপনার গ্লাসটি অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে রাখা হয়। এমনকি বন্ধ কন্টেইনার যেমন বোতল, পানির পাত্র থেকেও জীবাণু প্রবেশ করতে পারে। কারণ, আমাদের ত্বকে ঘাম, ময়লা, ধুলা, মরা কোষ, এমনকি নাকের শ্লেষ্মা লেগে থাকে। একবার যখন আমরা বোতলে মুখ লাগিয়ে পানি পান করি তাহলে তা পুনরায় ধোয়া উচিত, এর মূল কারণ হলো দূষণ।



 আপনার পানির তৃষ্ণা লাগতে পারে যেকোন সময়। দেখা যায় রাতে পানি খেয়ে কিছু অংশ রেখে দিলেন এবং সেটা সকালে বা ঘুম থেকে উঠে খেলেন। এর স্বাস্থ্যঝুঁকি নিয়ে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।


আপনি হয়তোবা জানেন যে, পানি খেয়ে পানির গ্লাস ঢেকে না রাখা অস্বাস্থ্যকর। ময়লা, ধূলিকণা এমনকি মশার ডিম বা মশা ইত্যাদি সারা রাত আপনার গ্লাসে পড়তে পারে, যদি আপনার গ্লাসটি অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে রাখা হয়। এমনকি বন্ধ কন্টেইনার যেমন বোতল, পানির পাত্র থেকেও জীবাণু প্রবেশ করতে পারে। কারণ, আমাদের ত্বকে ঘাম, ময়লা, ধুলা, মরা কোষ, এমনকি নাকের শ্লেষ্মা লেগে থাকে। একবার যখন আমরা বোতলে মুখ লাগিয়ে পানি পান করি তাহলে তা পুনরায় ধোয়া উচিত, এর মূল কারণ হলো দূষণ।

আমাদের মুখের লালাও বিভিন্ন ব্যাকটেরিয়া বহন করে। মুখ লাগিয়ে পানি পান করার পর যদি আপনি তা রেখে দেন তাহলে বোতলে থাকা পানি দূষিত হতেই থাকবে। আপনি তাই ব্যাকটেরিয়া দ্বারা আক্রান্ত হতে পারেন- এমনটাই জানান মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস রাজ্যের মারসি মেডিক্যাল সেন্টারের এমডি ও প্রাইমারি কেয়ার স্পেশালিস্ট মার্ক লিভে।

যদি আপনি বোতলে মুখ লাগিয়ে পানি পান করেন তাহলে তা আপনাকে একবারে শেষ করতে হবে বা বাকিটুকু ফেলে দিতে হবে। কিন্তু সত্যিটা হলো, এটি যখন আপনার নিজের ব্যাকটেরিয়া এটি অসম্ভাব্য যে, আপনি অসুস্থ হবেন। অনেকে আছেন যারা ব্যবহারকৃত গ্লাস, মগ, বোতল ব্যবহার করে থাকেন। কিন্তু নিজে তা দ্বারা আক্রান্ত হন না। তবে নিজের গ্লাস, মগ, বোতল অন্য কারোর সঙ্গে ভাগাভাগি না করাই ভালো। কারণ, আপনার অজ্ঞাতসারে বিভিন্ন সংক্রামক ও ছোঁয়াচে রোগের জীবাণু আপনার দেহে প্রবেশ করতে পারে।

ট্যাপ বা বোতলের পানিতে তেমন কোনো পার্থক্য নেই। কিন্তু মনে করা হয় যে, বোতলের পানি ট্যাপের পানির চেয়ে বিশুদ্ধ ও নিরাপদ। কিন্তু দুটোই একই স্বাস্থ্যমানের। বরং ২৫ ভাগের বেশি বোতলের পানি ট্যাপ থেকেই ভর্তি করা হয়।

আপনি আপনার গাড়িতে পানি রাখেন? সূর্যের আলোতে পানিকে যদি গরম করেন, তাহলে তা হবে ব্যাকটেরিয়ার বংশবিস্তারের উপযুক্ত স্থান। বিশেষ করে আপনি যদি আগে থেকেই মুখ লাগিয়ে পানি পান করে থাকেন। আপনার বোতলটিকে শীতল স্থানে রাখুন, এতে ব্যাকটেরিয়া ধীরে বংশবিস্তার করবে।
কিছু প্লাস্টিকের বোতল আছে যাতে বিপিএ বা এই ধরনের কিছু রাসায়নিক পদার্থ আছে, যা সূর্যের আলোতে বিক্রিয়া ঘটায়। গবেষকদের মতে বিপিএ স্বাস্থ্য সমস্যার কারণ হতে পারে। এটি দ্বারা আপনার আচরণ ও মস্তিষ্ক আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা আছে। তাই বিপিএমুক্ত বোতল ব্যবহার করাই শ্রেয়। আবার আপনি যদি ধাতুর তৈরি বোতল ব্যবহার করেন তাহলে পানি দ্রুত গরম হয়ে যাবে, ফলে জীবাণুরা দ্রুত বংশবিস্তার ঘটায়।

অবশ্যই জলীয়তা আমাদের দেহের জন্য আবশ্যক। তাই ডা. লিভেই সুপারিশ করেন যে, ‘বোতলে মুখ লাগিয়ে পানি পান করার অভ্যাস ত্যাগ করুন। বোতলের ছিপি খুলুন ও মুখে পানি ঢালুন এবং তা লাগিয়ে রাখুন।’

Post A Comment: