অধিনায়কের নাম ঘোষণা করেছে আগেই। এবার বাংলাদেশের বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের জন্য পূর্ণাঙ্গ দলই ঘোষণা করল শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড। নিজেদের মাটির এই সিরিজের জন্য ঘোষিত ১৫ সদস্যের দলে ডাক পেয়েছেন আসেলা গুনারত্নে ও নিরোশান ডিকভেলা। সম্প্রতি সীমিত ওভারের ক্রিকেটে ভালো খেলার পুরস্কার হিসেবেই টেস্ট দলে ফিরলেন এই দুই ব্যাটসম্যান। দুভাগা আসেলা গুনারত্নের টেস্ট দলে ফেরাটা প্রত্যাশিতই ছিল! গত অক্টোবর-নভেম্বরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের জন্য টেস্ট দলে ডাক পেয়েই নিজের সামর্থের প্রমাণ দিয়েছিলেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। দুই টেস্টের ৪ ইনিংসে একটি সেঞ্চুরি ও একটি হাফসেঞ্চুরিসহ করেছিলেন ৭৫ গড়ে ২২৫ রান! কিন্তু দুর্ভাগ্য তার, এরপরও দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের টেস্ট দলে জায়গা পাননি! তবে ওয়ানডে ও টি-টুয়েন্টিতে ঠিকই আলো ছড়িয়েছেন ব্যাটে। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের শেষ ম্যাচটাতেই পেয়েছেন প্রথম ওয়ানডে সেঞ্চুরির স্বাদ।

  অধিনায়কের নাম ঘোষণা করেছে আগেই। এবার বাংলাদেশের বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের জন্য পূর্ণাঙ্গ দলই ঘোষণা করল শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড। নিজেদের মাটির এই সিরিজের জন্য ঘোষিত ১৫ সদস্যের দলে ডাক পেয়েছেন আসেলা গুনারত্নে ও নিরোশান ডিকভেলা। সম্প্রতি সীমিত ওভারের ক্রিকেটে ভালো খেলার পুরস্কার হিসেবেই টেস্ট দলে ফিরলেন এই দুই ব্যাটসম্যান।


দুভাগা আসেলা গুনারত্নের টেস্ট দলে ফেরাটা প্রত্যাশিতই ছিল! গত অক্টোবর-নভেম্বরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের জন্য টেস্ট দলে ডাক পেয়েই নিজের সামর্থের প্রমাণ দিয়েছিলেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। দুই টেস্টের ৪ ইনিংসে একটি সেঞ্চুরি ও একটি হাফসেঞ্চুরিসহ করেছিলেন ৭৫ গড়ে ২২৫ রান! কিন্তু দুর্ভাগ্য তার, এরপরও দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের টেস্ট দলে জায়গা পাননি! তবে ওয়ানডে ও টি-টুয়েন্টিতে ঠিকই আলো ছড়িয়েছেন ব্যাটে। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের শেষ ম্যাচটাতেই পেয়েছেন প্রথম ওয়ানডে সেঞ্চুরির স্বাদ।


অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে তিন ম্যাচের টি-টুয়েন্টি সিরিজে গুনারত্নের ব্যাট ছিল আরও বেশি উজ্জ্বল। তিন ম্যাচের দুটিতেই করেছেন হাফসেঞ্চুরি। প্রথম ম্যাচে ৩৭ বলে ৫২, দ্বিতীয় ম্যাচে ৪৬ বলে অপরাজিত ৮৪। এরপরও টেস্ট দলে উপেক্ষিত থাকতে পারেন! শ্রীলঙ্কান নির্বাচকরাও সেই ভুল করেনি।


ডিকভেলার অভিজ্ঞতার ভান্ডারটা আরেকটু বড়। তিনি খেলেছেন ৪টি টেস্ট। তবে সেটা সেই ২০১৪ সালে। তবে ৪টি টেস্ট খেললেও ব্যাট হাতে তার পারফরম্যান্স ছিল হতাশাজনক।  ৭ ইনিংসে ব্যাট করে করেছিলেন মাত্র ১৪৪ রান। গড় ২০.৫৭! স্বাভাবিকভাবেই ছিটকে পড়েন টেস্ট দল থেকে। তবে সম্প্রতি সীমিত ওভারের ক্রিকেটে টপ অর্ডারে বাঁহাতি ব্যাটসম্যানের পারফরম্যান্স বেশ উজ্জ্বল। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের ওয়োনডে সিরিজে শ্রীলঙ্কা হোয়াইটওয়াশ হলেও ডিকভেলা খেলেছেন ১, ২৫, ৭৪, ৫৮ ও ৩৯ রানের ইনিংস। টি-টুয়েন্টিতেও তার ব্যাট একই রকম সরব। শ্রীলঙ্কার ঘরোয়া ক্রিকেটেও ডিকভেলার পারফরম্যান্স দারুণ। ২৩ বছর বয়সী ব্যাটসম্যান তার পুরস্কারটাও পেয়ে গেলেন নগদই।


শ্রীলঙ্কার ১৫ সদস্যের টেস্ট দল: রঙ্গনা হেরাথ (অধিনায়ক), দিনেশ চান্ডিমাল (উইকেটকিপার), দিমুথ করুনারত্নে, নিরোশান ডিকভেলা, উপুল থারাঙ্গা, ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা, কুশল মেন্ডিস, আসেলা গুনারত্নে, সুরঙ্গা লাকমল, লাহিরু কুমারা, নুয়ান প্রদিপ, ভিকুম সঞ্জয়া, দিলরুয়ান পেরেরা, লাকশান সান্দাকান ও মালিন্ডা পুষ্পকুমারা।

সুত্রঃ ক্রিকইনফো(ইএসপিএন)

Post A Comment: