নিজের বাল্যবিয়ে ঠেকিয়ে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপনকারী ঝালকাঠির কিশোরী শারমিন আক্তার এবার যুক্তরাষ্ট্রের ‘সাহসী নারী’র সম্মাননা পাচ্ছে।
ঝালকাঠির শারমিন পাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের 'সাহসী নারী' পদক  


নিজের বাল্যবিয়ে ঠেকিয়ে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপনকারী ঝালকাঠির কিশোরী শারমিন আক্তার এবার যুক্তরাষ্ট্রের ‘সাহসী নারী’র সম্মাননা পাচ্ছে।


বুধবার ওয়াশিংটনে মার্কিন ফাস্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প তার হাতে এ পদক তুলে দেওয়ার কথা। ঢাকায় যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসের এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়।

ঝালকাঠির রাজাপুরের শারমিনকে নবম শ্রেণির ছাত্রী থাকাকালে ২০১৫ সালে জোর করে বিয়ে দেওয়ার আয়োজন করেন তার মা। পড়ালেখার প্রতি অদম্য আগ্রহী ১৫ বছর বয়সী শারমিন বিয়ে ঠেকাতে মা এবং হবু স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা ঠুকে দেয়। যা তাকে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা করে।

এরপর শারমিন এলাকার আরও অনেক কিশোরীকে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা করেছে। তারই স্বীকৃতি হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতর এবার তাকে ‘ইন্টারন্যাশনাল উইমেন অব কারেজ অ্যাওয়ার্ড-২০১৭’ পদকে ভূষিত করছে। শারমিন ছাড়াও বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে এ পদকের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন ১৩ জন সাহসী নারী। বুধবার ওয়াশিংটনে পররাষ্ট্র দফতরে এক অনুষ্ঠানে তাদের হাতে এ পদক তুলে দেওয়ার কথা মার্কিন ফাস্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প ও রাজনীতিবিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি থমাস এ শ্যাননের।

মার্কিন দূতাবাসের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মাত্র ১৫ বছর বয়সে জোর করে বিয়ে ঠেকিয়ে দক্ষিণ এশিয়ার কিশোরীদের জন্য দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করায় এ বছর শারমিন আক্তারকে ‘সাহসী নারী’ পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে।

২০০৭ সালে এ পুরস্কারের প্রবর্তন করে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতর। বিম্বব্যাপী শান্তি, ন্যায়বিচার, মানবাধিকার, লৈঙ্গিক সমতা এবং নারীর ক্ষমতায়নের পক্ষে জোরালো ভূমিকা ও সাহসী পদক্ষেপের স্বীকৃতি হিসেবে এ পুরস্কার দেওয়া হয়। এ পর্যন্ত ৬০ দেশের শতাধিক সাহসী নারী এই সম্মননা পেয়েছেন।

Post A Comment: