লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় এক এসএসসি পরীক্ষার্থী ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ সোহেল রানা(২৬) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করে জেল-হাজতে পাঠিয়েছে। শুক্রবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।

 
লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় এক এসএসসি পরীক্ষার্থী ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ সোহেল রানা(২৬) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করে জেল-হাজতে পাঠিয়েছে। শুক্রবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, ওই মেয়েটিকে দীর্ঘদিন ধরে হাতীবান্ধা উপজেলার নওদাবাস ইউনিয়নের দইখাওয়া গ্রামের ছমির উদ্দিনের ছেলে রুবেল(২৭) উত্ত্যক্ত করে আসছিলেন। শুক্রবার রাতে ওই ছাত্রী প্রকৃতির ডাকে বাইরে বের হলে রুবেলসহ তার দুই বন্ধু সোহেল রানা ও জিয়ারুল তাকে তুলে নিয়ে যায়। এরপর পাশের একটি ভুট্টাখেতে ওই দুই বন্ধুর সহযোগিতায় রুবেল তাকে ধর্ষণ করেন। তার চিৎকারে লোকজন ছুটে আসলে ধর্ষক রুবেল ও এক বন্ধু জিয়ারুল(২৬) পালিয়ে গেলেও অপর বন্ধু সোহেল রানাকে আটক করেন স্থানীয় লোকজন। রাতেই ধর্ষকের পরিবারের লোকজন নওদাবাস ইউনিয়ন চেয়ারম্যান অশ্বিনী কুমার বসুনিয়ার মাধ্যমে বিষয়টি মীমাংসা করতে চেষ্টা করেন। পরে ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে হাতীবান্ধা থানায় একটি মামলা করেন। পুলিশ এ ঘটনায় রুবেলের বন্ধু গাওচুলকা এলাকার মানিক মিয়ার ছেলে সোহেল রানাকে গ্রেফতার করে শনিবার সকালে জেল-হাজতে পাঠিয়েছে। ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

হাতীবান্ধা থানার ওসি রেজাউল করিম এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ধর্ষকসহ বাকি আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Post A Comment: