জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) প্রধান আবু বকর আল বাগদাদি ইরাকে পরাজয় স্বীকার করে নিয়েছেন বলে ইরাকের একটি টেলিভিশনের খবরে দাবি করা হয়েছে। ইরাকে ‘বিদায়ী ভাষণে’ তিনি জঙ্গিদের আত্মঘাতী হতে অথবা দেশে ফেরত যেতে নির্দেশ দিয়েছেন।
If-you-can-run-and-not-be-suicide 


জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) প্রধান আবু বকর আল বাগদাদি ইরাকে পরাজয় স্বীকার করে নিয়েছেন বলে ইরাকের একটি টেলিভিশনের খবরে দাবি করা হয়েছে। ইরাকে ‘বিদায়ী ভাষণে’ তিনি জঙ্গিদের আত্মঘাতী হতে অথবা দেশে ফেরত যেতে নির্দেশ দিয়েছেন।


ইরাকি টিভির বরাত দিয়ে ডেইলি মেইল ও হাফিংটন পোস্টের খবরে বলা হয়েছে, মসুলসহ উত্তর ইরাকের একাংশ কার্যত বন্দী হয়ে পড়ায় আইএস যোদ্ধাদের কাছে ‘বিদায় বার্তা’ পাঠিয়েছেন বাগদাদি। ওই ‘বিদায় বার্তায়’ তিনি আইএস যোদ্ধাদের উদ্দেশে বলেছেন, ‘পারলে ইরাক ছেড়ে পালিয়ে যাও, না হলে আত্মঘাতী হয়ে নিজেদের উড়িয়ে দাও।’
খবরে বলা হয়, মসুলের নিয়ন্ত্রণ হাতছাড়া হওয়া যখন সময়ের ব্যাপার, তখন হার স্বীকার করে আইএসের প্রধান এমন বক্তব্য দিলেন।

গতকাল বুধবার ইরাকের সেনাবাহিনী জানায়, আইএসের নিয়ন্ত্রণে থাকা পশ্চিম মসুল থেকে বের হওয়ার সব রাস্তার নিয়ন্ত্রণ এখন তাদের হাতে। এরপরই ‘বিদায়ী বিবৃতিতে’ বাগদাদি এসব কথা বলেন বলে ইরাকি টিভি নেটওয়ার্ক আল সুমারিয়ায় বলা হয়েছে। তবে এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করা যায়নি।

এটা এখনো নিশ্চিত নয় যে বাগদাদি মসুলে আছেন কি না। এর আগে বিভিন্ন সূত্রের বরাত দিয়ে খবরে বলা হয়েছিল, বাগদাদি নিহত হয়েছেন।


If-you-can-run-and-not-be-suicide

২০১৪ সাল থেকে মসুল আইএসের দখলে রয়েছে। ওই বছর থেকেই রাজধানী বাগদাদের উত্তর ও পশ্চিমের এক বিশাল অংশও দখল করে রেখেছে তারা। তবে যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন কোয়ালিশন বাহিনীর বিমান হামলা ও অন্যান্য সহায়তায় ইরাকি বাহিনী এখানকার হারানো অনেক এলাকা পুনরুদ্ধার করে ফেলেছে।
ইরাকের মসুল শহরকে দেশটিতে আইএসের সর্বশেষ ঘাঁটি হিসেবে ধরা হয়। এ শহরের নিয়ন্ত্রণ লাভে গত বছরের ১৭ অক্টোবর থেকে সমন্বিত অভিযান শুরু করেছে ইরাকি বাহিনী।

আবু বকর আল বাগদাদি নিজেকে খলিফা বলে ঘোষণা করেছিলেন। তাঁর বাহিনী ইরাক ও সিরিয়ার বিস্তীর্ণ অঞ্চল দখল করেছিল।

বিভিন্ন সূত্রের বরাত দিয়ে গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, ইতিমধ্যেই আইএস যোদ্ধারা অনেকেই ইরাক ছেড়ে পাশের দেশ সিরিয়ায় পালিয়ে গেছে। যে জঙ্গিরা এখনো মসুল শহরে আটকে রয়েছে, তারাও পালানোর পথ খুঁজছে। বাগদাদির ঘোষণার পর ইরাকে আইএস যুগ শেষ বলেই ধরে নিচ্ছেন বিশ্লেষকেরা। এর ফলে বাগদাদির সাম্রাজ্য এখন শুধু পূর্ব সিরিয়ার একাংশে সীমাবদ্ধ হয়ে পড়ল।

Post A Comment: