স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রচেষ্টায় পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর জনবল ও দক্ষতা বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে মানুষ শান্তিতে ঘুমাতে ও ব্যবসা-বাণিজ্য করতে পারছে। দেশে জঙ্গি তৎপরতা কমেছে। জঙ্গি, বন ও জলদস্যুরা দল বেঁধে আত্মসমর্পণ করতে বাধ্য হচ্ছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রচেষ্টায় পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর জনবল ও দক্ষতা বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে মানুষ শান্তিতে ঘুমাতে ও ব্যবসা-বাণিজ্য করতে পারছে। দেশে জঙ্গি তৎপরতা কমেছে। জঙ্গি, বন ও জলদস্যুরা দল বেঁধে আত্মসমর্পণ করতে বাধ্য হচ্ছে।


আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জামালপুরের মাদারগঞ্জ উপজেলার জোনাইল এলাকার নবনির্মিত ফায়ার স্টেশন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেছেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের আগের হতদরিদ্র দেশ এখন আর নেই। দেশের নানা প্রান্তে প্রধানমন্ত্রীর প্রচেষ্টায় উন্নয়ন অব্যাহত রয়েছে। সেই ধারাবাহিকতায় আগামী ২০২১ সালের মধ্যে মধ্য আয়ের এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশে পরিণত হবে। আমাদের বাইরে গিয়ে চাকরি করতে হবে না। অনেকেই আমাদের দেশেই চাকরি করতে আসবে।’ উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নৌকা মার্কায় ভোটও চান তিনি।

আসাদুজ্জামান খান কামাল আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রচেষ্টায় দেশের পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর জনবল ও দক্ষতা বৃদ্ধি পাওয়ায় দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অনেক পরিবর্তন এসেছে। ফলে মানুষ শান্তিতে ঘুমাতে ও ব্যবসা-বাণিজ্য করতে পারছে। মানুষ যাতে শান্তিতে ঘুমাতে পারে, সেটাই আমরা চেয়েছিলাম। বর্তমান সময়ে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অনেক পরিবর্তন এসেছে। দেশে জঙ্গি তৎপরতা কমেছে। জঙ্গি, বন ও জলদস্যুরা দল বেঁধে আত্মসমর্পণ করতে বাধ্য হচ্ছে।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘এখন মানুষের মধ্যে সচেতনতা অনেক বেড়েছে। সাধারণ মানুষই এখন জঙ্গিদের ধরিয়ে দিচ্ছে। দেশে এখন এক নম্বর সমস্যা মাদক। দেশকে মাদকমুক্ত করতে মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কঠোর অবস্থান নিয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেপ্তার করে। কিন্তু তাদের বিরুদ্ধে কেউ সাক্ষ্য দিতে চাই না। ফলে দ্রুত সময়ের মধ্যে জামিনে বেরিয়ে আসে। ফলে অনেকটা নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না।’ মাদকের বিরুদ্ধে মানুষকে উদ্বুদ্ধ করতে প্রচারণা ও সামাজিক আন্দোলনের আহ্বান জানান তিনি।

এর আগে বেলা একটার দিকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে আইনশৃঙ্খলা কমিটির বিশেষ সভায় অংশ নেন। জেলা প্রশাসক মো. শাহাবুদ্দিন খানের সভাপতিত্ব সভায় বক্তব্য দেন বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম, জামালপুর-৫ আসনের সাংসদ রেজাউল করিম হীরা, জামালপুর-২ আসনের সাংসদ ফরিদুল হক, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুহাম্মদ বাকী বিল্লাহ ও সাধারণ সম্পাদক জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফারুক আহম্মেদ চৌধুরী।

বেলা ১১টার দিকে ঢাকা থেকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হেলিকপ্টারে জামালপুরে পৌঁছান। এরপর তিনি জরাজীর্ণ জামালপুর সদর উপজেলার ফায়ার স্টেশন পরিদর্শন করেন।

Post A Comment: