নরসিংদী মাধবদীতে পুলিশকে মারধর করে আসামি ছিনতাইয়ের রেশ না কাটতেই আবারো জনতার আক্রমণের শিকার হলো পুলিশ। মঙ্গলবার গভীর রাতে মাধবদীর নুরালাপুর ইউনিয়নের ইসলামাবাদ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় গভীর রাতে ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মঙ্গলবার গভীর রাতে ইসলামবাদে অপরিচিত দুই যুবকের চলাফেরা স্থানীয়দের সন্দেহ হয়। তাঁরা নিজেদের ডিবি পুলিশের সদস্য দাবি করে, ওই এলাকার মৃত আবদুল গনি মিয়ার ছেলে মোতালিবকে মারধর করে জোরপূর্বক উঠিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে।
Again-the-DB-police-madhabadite-people-pitalo
 

নরসিংদী মাধবদীতে পুলিশকে মারধর করে আসামি ছিনতাইয়ের রেশ না কাটতেই আবারো জনতার আক্রমণের শিকার হলো পুলিশ। মঙ্গলবার গভীর রাতে মাধবদীর নুরালাপুর ইউনিয়নের ইসলামাবাদ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় গভীর রাতে ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মঙ্গলবার গভীর রাতে ইসলামবাদে অপরিচিত দুই যুবকের চলাফেরা স্থানীয়দের সন্দেহ হয়। তাঁরা নিজেদের ডিবি পুলিশের সদস্য দাবি করে, ওই এলাকার মৃত আবদুল গনি মিয়ার ছেলে মোতালিবকে মারধর করে জোরপূর্বক উঠিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে।


এ সময় মোতালিবের চিৎকার শুনে স্থানীয়রা তাকে ছাড়িয়ে নিতে চাইলে তাদের সাথে সংঘর্ষ হয়। পরে মারধরের শিকার দুই ব্যক্তি দ্রুত এলাকা ছেড়ে চলে যায়। এ ঘটনার জের ধরে নরসিংদী ডিবি পুলিশের একটি দল মধ্যরাতে ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে সাধারণ মানুষকে মারধর করে ৫ জনকে আটক করে।

এলাকাবাসী আরো জানায়, জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) খোকন চন্দ্র সরকারের নেতৃত্বে পুলিশ বাড়ির গেইটের তালা ভেঙে মোতালিবের কলেজ পড়ুয়া স্ত্রীসহ ও তার ছোট ভাই মহসিন (২৪) কে বেদম মারধর করে। একই সাথে পাশের বাড়ির দরজা ভেঙে হানিফার তিন ছেলে প্রবাস ফেরত হারুন মিয়া (৩৫), মতিন মিয়া (২৬) ও ইমান আলীসহ ৫ জনকে আটক করে ডিবি পুলিশের কার্যালয়ে নিয়ে যায়।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মাদ সাইদুর রহমান বলেন, ইসলামাবাদ এলাকায় মাদকের ছড়াছড়ি চলছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গতরাতে ওই গ্রামে অভিযান চালায় ডিবি পুলিশ। এসময় এলাকার লোকজন পরিকল্পিতভাবে ডিবি পুলিশের কর্মকর্তা ও তাদের বহনকারী চালকের ওপর চড়াও হয়ে তাদের মারধর করে। এ বিষয়ে মাধবদী থানায় একটি মামলা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, বিবেচনার স্বার্থে গৃহবধূকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। আর বাকিদের বিকেলে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গত মাসে মাধবদীতে পুলিশকে মারধর করে হাতকড়াসহ ডাকাতি মামলার আসামিকে ছিনিয়ে নেয় গ্রামবাসী। এই ঘটনায় এলাকাবাসীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হলে পুরুষ শূন্য হয়ে পড়ে বাহাদুরপুর গ্রাম।

Post A Comment: