রাজশাহীতে প্রায় চার কেজি বিস্ফোরকদ্রব্যসহ গ্রেফতারকৃত আবদুল লতিফ ও সাকিরুল ইসলােমের বিষয়ে তথ্য সংগ্রহে মাঠে নেমেছে পুলিশ। সোমবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে রাজশাহী নগরীর শিরোইলে বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এদের একজনের বাড়ি চাপাইনবাবগঞ্জে অন্যজন চট্টগ্রামের।
 

রাজশাহীতে প্রায়  চার কেজি বিস্ফোরকদ্রব্যসহ   গ্রেফতারকৃত আবদুল লতিফ ও সাকিরুল ইসলােমের বিষয়ে তথ্য সংগ্রহে মাঠে নেমেছে পুলিশ। সোমবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে রাজশাহী নগরীর শিরোইলে বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এদের একজনের বাড়ি চাপাইনবাবগঞ্জে অন্যজন চট্টগ্রামের।

উদ্ধারকৃত বিস্ফোরকগুলো কোথায় কী কাজে ব্যবহার করা হতো এবিষয়ে তথ্য উদঘাটনে মাঠে নেমেছে পুলিশ। এছাড়া, গ্রেফতারকৃতরা কোন জঙ্গি সংগঠনের সাথে জড়িত কীনা এবিষয়ে খোঁজ নিচ্ছে পুলিশ। তাদের জীবন বৃত্তান্ত সম্পর্ জানতে স্থানীয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করছে মহানগর পুলিশ।

gun 03রাজশাহী মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার একেএম নাহিদুল ইসলাম জানান, সারাদেশে জঙ্গি তৎপরতা বৃদ্ধি পাওয়ায় রাজশাহীতে পুলিশ সতর্ক অবস্থানে আছে। এরই ধারাবাহিকতায় বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে তল্লাশি চলছে। সোমবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশের একটি দল বাস টার্মিনাল এলাকায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী শ্যামলী পরিবহনে তল্লাশি চালায়। এসময় বাসের যাত্রী আব্দুল লতিফ ও সাকিরুলের কাছে বেশ কিছু বিস্ফোরক দ্রব্য পাওয়া যায়। বিস্ফোরক দ্রব্যগুলো একটি ব্যাগের ভেতরে কয়েকটি পলিথিনে মোড়ানো ছিল। বিস্ফোরক দ্রব্যগুলোর মধ্যে গান পাউডার, সালফা র ও গন্ধকসহ বোমা তৈরির কয়েক ধরনের উপকরণ আছে।

এদিকে গ্রেফতারকৃত দুই ব্যক্তিকে রাতভর গোয়েন্দা কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে মহানগর পুলিশের ৩টি দল অভিযান শুরু করেছে। তবে বিস্ফোরক দ্রব্যগুলো রাজধানী ঢাকার আশপাশের এলাকায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। আটককৃতদের সাথে জঙ্গি সম্পৃক্ততা রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।থেকে নেওয়া

Post A Comment: