সিরীয় শিশুদের জন্য ২০১৬ সাল ছিল সবচেয়ে খারাপ। দেশটিতে গৃহযুদ্ধ শুরুর পর থেকে আগের যে কোন বছরের তুলনায় গতবছর অধিকসংখ্যক শিশু নিহত হয়। ইউনিসেফ জানায়, ২০১৬ সালে সিরিয়ায় কমপক্ষে ৬শ’ ৫২ শিশু নিহত হয়। আবার এদের মধ্যে ২শ’ ৫৫ শিশু বিদ্যালয়ের ভেতরে বা আশপাশে নিহত হয়। ২০১৫ সালের তুলনায় দেশটিতে শিশু নিহতের এ সংখ্যা ২০ শতাংশ বেশী।


  সিরীয় শিশুদের জন্য ২০১৬ সাল ছিল সবচেয়ে খারাপ। দেশটিতে গৃহযুদ্ধ শুরুর পর থেকে আগের যে কোন বছরের তুলনায় গতবছর অধিকসংখ্যক শিশু নিহত হয়

ইউনিসেফ জানায়, ২০১৬ সালে সিরিয়ায় কমপক্ষে ৬শ’ ৫২ শিশু নিহত হয়। আবার এদের মধ্যে ২শ’ ৫৫ শিশু বিদ্যালয়ের ভেতরে বা আশপাশে নিহত হয়। ২০১৫ সালের তুলনায় দেশটিতে শিশু নিহতের এ সংখ্যা ২০ শতাংশ বেশী।

ইউনিসেফ আরও জানায়, এ সময়ের মধ্যে সাড়ে ৮শ’র বেশি শিশুকে যুদ্ধে নিয়োগ করা হয়। প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৫ সালের তুলনায় এ সংখ্যা প্রায় দ্বিগুণ। দেখা যাচ্ছে যুদ্ধে নিয়োগ করা এসব শিশুকে কাউকে হত্যা করা, আত্মঘাতী বোমা হামলা চলানো বা কারারক্ষী হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে।

মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকা বিষয়ক ইউনিসেফের আঞ্চলিক পরিচালক গীর্ট ক্যাপেলারি বলেন, সিরিয়ায় শিশুদের ভোগান্তির ব্যাপকতা নজিরবিহীন। তিনি বলেন, দেশটিতে লাখ লাখ শিশু হামলার শিকার হওয়ায় তাদের জীবনযাত্রা অস্থিতিশীল হয়ে পড়ছে। ইউনিসেফ জানায়, সিরিয়ার প্রায় ২৩ লাখ শিশু তুরস্ক, লেবানন, জর্ডান, মিশর ও ইরাকে শরণার্থী হিসেবে বসবাস করছে।

উল্লেখ্য, ২০১১ সালের মার্চ মাসে সিরিয়া সংঘাত শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত দেশটিতে ৩ লাখ ১০ হাজারের বেশি লোক নিহত এবং লাখ লাখ লোক তাদের ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়ে গেছে।

Post A Comment: