হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের শুল্ক গোয়ান্দা ও তদন্ত অধিদফতর অভিনব কায়দায় ‘ট্রলি ট্রে’র নিচে লুকিয়ে আনা ১৫ পিস স্বর্ণের বার জব্ধসহ মোহাম্মদ মান্নান মিয়া নামে এক যাত্রীকে আটক করেছে।

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের শুল্ক গোয়ান্দা ও তদন্ত অধিদফতর অভিনব কায়দায় ‘ট্রলি ট্রে’র নিচে লুকিয়ে আনা ১৫ পিস স্বর্ণের বার জব্ধসহ মোহাম্মদ মান্নান মিয়া নামে এক যাত্রীকে আটক করেছে।

৭০ লাখ টাকা মূল্যের ১৫ পিস স্বর্ণের বার জব্ধ

আটককৃত মান্নান মিয়া পেশায় একজন গাড়ি চালক। তিনি দুবাই’এ গাড়ি চালান। তার বাড়ি কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলায়। দুপুরে শুল্ক গোয়েন্দা অধিদফতরের ডিজি মইনুল খান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মান্নান দুবাই থেকে ওমান হয়ে বাংলাদেশ বিমানের বিজি-১২২ ফ্লাইটে বেলা ১১টায় ঢাকায় অবতরণ করেন। ইমিগ্রেশন সম্পন্ন করে ১ নম্বর ব্যাগেজ বেল্ট থেকে লাগেজ সংগ্রহ করে গ্রিন চ্যানেল অতিক্রমের সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে কাস্টমস ব্যাগেজ কাউন্টারে নিয়ে আসে।

বিভিন্ন সংস্থার উপস্থিতিতে তার মালামাল তল্লাশির এক পর্যায়ে লাগেজ বহনকারী ‘ট্রলি ট্রে’র নিচে চুম্বকের সাহায্যে ট্রেতে লুকানো পাঁচটি আলাদা টুকরার মাঝে স্বর্ণের বারের সন্ধান পাওয়া যায়।

স্বর্ণের বার গুলো অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল ও স্কচটেপ দিয়ে মোড়ানো এবং চুম্বক দিয়ে আটকানো ছিল। পরে ৫ টি টুকরা খুলে প্রতিটির ভেতরে ৩ পিস করে সর্বমোট ১৫ পিস স্বর্ণের বার পাওয়া যায়। প্রতিটি স্বর্ণের বারের ওজন ১০ তোলা করে সর্বমোট ১৫০ তোলা। যার বাজার মূল্য প্রায় ৭০ লাখ টাকা।

তিনি আরো বলেন,আটককৃত মান্নানের বিরুদ্ধে শুল্ক আইন ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

Post A Comment: