জিরা রান্নায় মসলা হিসেবে ব্যবহার হলেও এর রয়েছে অনেক পুষ্টিগুণ। আর যদি আপনি চান তাহলে বাড়িতে আসা অতিথি বা নিজেদের জন্য বাজার থেকে কেনা কোমল পানীয়ের বদলে পান করতে পারেন মজাদার ও স্বাস্থ্যকর জিরা পানি। এটি তৈরি করতে খুবই অল্প উপকরণ লাগে। তৈরিতে সময়ও লাগে কম। আসুন জেনে নিই কীভাবে তৈরি করবেন জিরা পানি। উপকরণ: ভাজা জিরার গুড়ো (প্রতি এক গ্লাসের জন্য হাফ চামচ করে) ২ চামচ, তেঁতুলের কাথ ২ চামচ কাঁচা মরিচের রস ২ চামচ আখের গুড় ২ টেবিল চামচ খাবার লবণ স্বাদমতো বিট লবণ সামান্য পুদিনা পাতা কুচি ২ চা চামচ (ইচ্ছা) পানি ৪ গ্লাস প্রণালি: প্রথমে পানিতে গুড় ভিজিয়ে রাখুন। কিছুক্ষণ পর গুড় নরম হলে গুলিয়ে নিনl এরপর ভাজা জিরা গুড়ো আর পুদিনা পাতা বাদে বাকি সব উপকরণ পানির সঙ্গে মিশিয়ে ঠাণ্ডা হবার জন্য ফ্রিজে রাখুনl পরিবেশনের আগে ভাজা জিরা গুড়ো ও পুদিনা পাতা মিশিয়ে ঠাণ্ডা ঠাণ্ডা পরিবেশন করুন ‘জিরা পানি’। আপনি চাইলে সবকিছু একবারে মিশিয়ে রাখতে পারেন আগে থেকেই কিন্তু এতে করে ভাজা জিরা ও পুদিনা পাতার চনমনে রিফ্রেশিং ফ্লেভার খানিকটা নষ্ট হয়ে যাবেl তাই পরেই মেশালেই ভালো করবেন। জিরা পানির উপকারিতা: জিরা পানি হজমে সহায়তা করে। জিরা পানি ক্লান্তি দূর করে সতেজ করে তোলে। প্রচণ্ড গরমে পানির চাহিদা পূরণ করে। ওজন কমাতেও ব্যাপক ভুমিকা রয়েছে জিরা পানির। এসিডিটি বা গ্যাস্টিকের সমস্যা থেকে সুরক্ষা দেয়। ত্বকে উজ্জ্বলতা আনতেও এর জুরি নেই। তথ্য ও ছবি : ইনটারনেট


  জিরা রান্নায় মসলা হিসেবে ব্যবহার হলেও এর রয়েছে অনেক পুষ্টিগুণ। আর যদি আপনি চান তাহলে বাড়িতে আসা অতিথি বা নিজেদের জন্য বাজার থেকে কেনা কোমল পানীয়ের বদলে পান করতে পারেন মজাদার ও স্বাস্থ্যকর জিরা পানি। এটি তৈরি করতে খুবই অল্প উপকরণ লাগে। তৈরিতে সময়ও লাগে কম। আসুন জেনে নিই কীভাবে তৈরি করবেন জিরা পানি।


উপকরণ:

  • ভাজা জিরার গুড়ো (প্রতি এক গ্লাসের জন্য হাফ চামচ করে) ২ চামচ, তেঁতুলের কাথ ২ চামচ
  • কাঁচা মরিচের রস ২ চামচ
  • আখের গুড় ২ টেবিল চামচ
  • খাবার লবণ স্বাদমতো
  • বিট লবণ সামান্য
  • পুদিনা পাতা কুচি ২ চা চামচ (ইচ্ছা)
  • পানি ৪ গ্লাস


প্রণালি:

প্রথমে পানিতে গুড় ভিজিয়ে রাখুন। কিছুক্ষণ পর গুড় নরম হলে গুলিয়ে নিনl এরপর ভাজা জিরা গুড়ো আর পুদিনা পাতা বাদে বাকি সব উপকরণ পানির সঙ্গে মিশিয়ে ঠাণ্ডা হবার জন্য ফ্রিজে রাখুনl পরিবেশনের আগে ভাজা জিরা গুড়ো ও পুদিনা পাতা মিশিয়ে ঠাণ্ডা ঠাণ্ডা পরিবেশন করুন ‘জিরা পানি’। আপনি চাইলে সবকিছু একবারে মিশিয়ে রাখতে পারেন আগে থেকেই কিন্তু এতে করে ভাজা জিরা ও পুদিনা পাতার চনমনে রিফ্রেশিং ফ্লেভার খানিকটা নষ্ট হয়ে যাবেl তাই পরেই মেশালেই ভালো করবেন।

জিরা পানির উপকারিতা:

  • জিরা পানি হজমে সহায়তা করে।
  • জিরা পানি ক্লান্তি দূর করে সতেজ করে তোলে।
  • প্রচণ্ড গরমে পানির চাহিদা পূরণ করে।
  • ওজন কমাতেও ব্যাপক ভুমিকা রয়েছে জিরা পানির।
  • এসিডিটি বা গ্যাস্টিকের সমস্যা থেকে সুরক্ষা দেয়।
  • ত্বকে উজ্জ্বলতা আনতেও এর জুরি নেই।



তথ্য ও ছবি : ইনটারনেট

Post A Comment: