মজুদ করা চামড়া প্রক্রিয়াজাত হচ্ছে হাজারীবাগে। এ কাজ চলবে আরও বেশ কয়েকদিন। বৃহস্পতিবার হাজারীবাগ এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, যেসব ট্যানারির নিজস্ব মজুদ করার ব্যবস্থা নাই, সেসব ট্যানারি থেকে চামড়া অন্য ট্যানারিতে সরিয়ে নিতেও দেখা গেছে।

মজুদ করা চামড়া প্রক্রিয়াজাত হচ্ছে হাজারীবাগে। এ কাজ চলবে আরও বেশ কয়েকদিন। বৃহস্পতিবার হাজারীবাগ এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, যেসব ট্যানারির নিজস্ব মজুদ করার ব্যবস্থা নাই, সেসব ট্যানারি থেকে চামড়া অন্য ট্যানারিতে সরিয়ে নিতেও দেখা গেছে। 

হাজারীবাগে মজুদ চামড়াই প্রক্রিয়াজাত হচ্ছে

তবে সরকারের সময়সীমা পার হওয়ার দ্বিতীয় দিনে (বৃহস্পতিবার) কোনও কাঁচা চামড়া হাজারীবাগের ট্যানারি পল্লীতে প্রবেশ করতে দেখা যায়নি । এ বিষয়ে হাজারীবাগ এলাকায় কঠোর নজরদারি করছে পুলিশ ও চামড়া শিল্পের সঙ্গে জড়িত অ্যাসোসিয়েশন, বিসিকসহ শিল্প মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট দায়িত্বপ্রাপ্তরা। সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশের নিয়মিত টহলের পাশাপাশি সাদা পোশাকেও দায়িত্ব পালন করছেন বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শিল্প মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. মোশাররফ হোসেন ভূইয়া।

তিনি বলেন, ‘পরবর্তীতে এ সংক্রান্ত নজরদারিতে ঢিলেমিভাব যাতে না আসে সেজন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি কঠোর নির্দেশ  রয়েছে। পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকেও সেভাবে বলা হয়েছে। এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আমাদের সহযোগিতা করছে।’

বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিটিএ) সভাপতি শাহীন আহমেদ বলেন, ‘সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বুধবার ভোর ৬টার পর থেকে আমাদের কোনও সদস্য কোনও চামড়া নিয়ে হাজারীবাগে আসেনি। ৩১ জানুয়ারি ভোর ৬টার আগ পর্যন্ত সরকারের দেওয়া সময়ের মধ্যে যে চামড়া হাজারীবাগে এসেছে, তা এই মুহূর্তে প্রক্রিয়াজাত করা হচ্ছে।’ এই প্রক্রিয়াকরণ আগামী কয়েকদিন চলবে বলেও জানান তিনি।

পাইওনিয়ার ট্যানারি লিমিটেডের শ্রমিক এম এ রবিউল হক জানান, আগের আনা কাঁচা চামড়া মজুদ রয়েছে। সেগুলোই প্রসেস করা হচ্ছে। তবে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে হাজারীবাগে মজুদকৃত চামড়া শেষ হয়ে যাবে।’ বর্তমানে নতুন করে আর কোনও চামড়া এখানে আসছে না বলেও জানান রবিউল হক।

উল্লেখ্য, শিল্প মন্ত্রণালয়ের নির্ধারিত  ৩১ জানুয়ারি পার হওয়ায় পর ১ ফেব্রুয়ারি বুধবার থেকে  হাজারীবাগে কাঁচা চামড়া প্রবেশ বন্ধ রয়েছে। বৃহস্পতিবার সরেজমিনে দেখা গেছে, হাজারীবাগ এলাকায় পুলিশ প্রহরা রয়েছে। সাদা পোশাকেও দায়িত্ব পালন করছেন বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা।

আগামীতেও এ প্রহরা অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন শিল্প সচিব। অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে আগেভাগেই সদস্যদের জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, সরকারের নির্ধারিত সময় ৩১ জানুয়ারির পর কেউ যাতে হাজারীবাগে কাঁচা চামড়া নিয়ে প্রবেশ না করেন। অ্যাসোসিয়েশনের নির্দেশ মতো ব্যবসায়ীরাও কেউ চামড়া নিয়ে আর হাজারীবাগে আসেনি।

Post A Comment: