হঠাৎ করে ডাকা পরিবহন ধর্মঘটে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন সিলেটের মানুষ। পরিবহন শ্রমিকরা রাস্তায় নেমেছেন পিকেটিংয়ে। বাধা দিচ্ছেন যান চলাচলে, যানবাহন থেকে নামিয়ে দিচ্ছেন যাত্রীদের। ফলে বিপাকে পড়েছেন সাধারণ যাত্রীরা।
Passenger-transport-is-harassing-workers 

 হঠাৎ করে ডাকা পরিবহন ধর্মঘটে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন সিলেটের মানুষ। পরিবহন শ্রমিকরা রাস্তায় নেমেছেন পিকেটিংয়ে। বাধা দিচ্ছেন যান চলাচলে, যানবাহন থেকে নামিয়ে দিচ্ছেন যাত্রীদের। ফলে বিপাকে পড়েছেন সাধারণ যাত্রীরা।


মঙ্গলবার সিলেটের কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল ও কুমারগাও বাস টার্মিনাল এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, চলাচল বন্ধ রয়েছে সব ধরণের বাস, লেগুনা ও সিএনজির। কয়েকটি যাত্রীবাহী সিএনজি চলাচলের চেষ্টা করলেও পড়তে হচ্ছে শ্রমিকদের পিকেটিংয়ের মুখে। পিকেটাররা যানবাহন আটকে নামিয়ে দিচ্ছেন যাত্রীদের, গাড়ি ভাঙার হুমকি দিচ্ছেন চালকদের।

এমনকি নগরীর ভিতরেও যাত্রীদেরকে হয়রানী করছে শ্রমিকরা। নগরীর আম্বরখানা, সিভিল সার্জনের কার্যালয়ের সামন এবং চৌহাট্টা এলাকায়ও দেখা যায় একই চিত্র।

পিকেটিং থেকে ছাড় পাচ্ছেন না বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও পরীক্ষার্থীরাও। তাদের নামিয়ে দেয়া হয়েছে সিএনজি থেকে। এমনকি বৃদ্ধ, নারী ও শিশু যাত্রী বহনকারী যানবাহনও পড়েছে পরিবহন শ্রমিকদের বাধার মুখে। গাড়ি থেকে নেমে হেঁটে গন্তব্যে উদ্দেশে যাত্রা করছেন নিরুপায় যাত্রীরা।

তবে সড়ক পরিবহন মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সিলেট বিভাগের সভাপতি সেলিম আহমেদ ফলিক পিকেটিংয়ের বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, আমাদের শ্রমিকরা কোনো পিকেটিং করছে না। স্বতস্ফুর্তভাবে পরিবহন ধর্মঘট পালিত হচ্ছে।

উল্লেখ্য, তারেক মাসুদ ও মিশুক মুনীর নিহতের ঘটনায় এক বাসচালকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশের প্রতিবাদে মঙ্গলবার সকাল থেকে সারাদেশে পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন। সারাদেশের মতো সিলেটেও সকাল থেকে চলছে পরিবহন ধর্মঘট। এর আগে একই কারণে খুলনা বিভাগের ১০ জেলায় পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দেয়া হয়েছিলো।

Post A Comment: