যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলাইনায় হাইস্কুল ছাত্রীর প্রতি বর্বরোচিত ব্যবহার করেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। সেই দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ায় রাজ্যজুড়ে নিন্দার ঝড় বইছে। এর আঁচ ছড়িয়ে পড়েছে পুরো যুক্তরাষ্ট্রেই। মাত্র ৮ সেকেন্ডের সংক্ষিপ্ত ওই ভিডিওতে দেখা যায় রোজভিল হাইস্কুলে রুবেন ডে লস সান্তোস নামের রিসোর্স অফিসার এক ছাত্রীকে তুলে আছাড় মারছে। এমন বর্বরোচিত ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে অবচেতন হয়ে পড়ে মেয়েটি। তারপরও সেই অফিসার মেয়েটিকে টেনে হিঁচড়ে নিয়ে যেতে থাকে। কারণ হিসেবে জানা যায়, স্কুলের মেয়েরা হট্টগোল করায় এমন কঠোর আচরণ করে কর্তৃপক্ষ। ঘটনাটি অপর এক ছাত্রী তার মুঠোফোনে ধারণ করে। অত্যাচারিত সেই মেয়েটির মা জানায়, ঘটনার পর তার সন্তানকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়। অবশ্য পরে তাকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেয়া হয়। মেয়ের প্রতি স্কুল কর্তৃপক্ষের এমন ব্যবহারের জন্য তিনি বিচার দাবি করেছেন। চাপের মুখে স্কুল কর্তৃপক্ষ তদন্তের ঘোষণা দিয়েছে। সেই অফিসারকে শাস্তি দেয়া হবে বলেও জানান হয়েছে। রোজভিল পুলিশ কর্তৃপক্ষ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ঘটনার পরপরই বিষয়টি স্থানীয় পুলিশকে অবহিত করা হয়। এছাড়া দায়ী ব্যক্তিকে তাৎক্ষণিকভাবে কাজ থেকে অব্যহতি দেয়া হয়। এছাড়া স্কুল কর্তৃপক্ষ বিষয়টি তদন্তের জন্য নর্থ ক্যারোলাইনা স্টেট ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে অনুরোধ করেছে। ডে লোস সান্তোস ২০১২ সালের ফেব্রুয়ারিতে স্কুলে যোগদান করে। তবে কাজ থেকে অব্যহতি দেয়া হলেও দায়ী ব্যক্তিকে তদন্তকালীন সময়ে বেতন দেয়া হবে বলে স্কুল কর্তৃপক্ষের তরফে জানান হয়েছে।


যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলাইনায় হাইস্কুল ছাত্রীর প্রতি বর্বরোচিত ব্যবহার করেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। সেই দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ায় রাজ্যজুড়ে নিন্দার ঝড় বইছে। এর আঁচ ছড়িয়ে পড়েছে পুরো যুক্তরাষ্ট্রেই।


মাত্র ৮ সেকেন্ডের সংক্ষিপ্ত ওই ভিডিওতে দেখা যায় রোজভিল হাইস্কুলে রুবেন ডে লস সান্তোস নামের রিসোর্স অফিসার এক ছাত্রীকে তুলে আছাড় মারছে। এমন বর্বরোচিত ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে অবচেতন হয়ে পড়ে মেয়েটি। তারপরও সেই অফিসার মেয়েটিকে টেনে হিঁচড়ে নিয়ে যেতে থাকে। 

কারণ হিসেবে জানা যায়, স্কুলের মেয়েরা হট্টগোল করায় এমন কঠোর আচরণ করে কর্তৃপক্ষ। ঘটনাটি অপর এক ছাত্রী তার মুঠোফোনে ধারণ করে। অত্যাচারিত সেই মেয়েটির মা জানায়, ঘটনার পর তার সন্তানকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়। অবশ্য পরে তাকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেয়া হয়। মেয়ের প্রতি স্কুল কর্তৃপক্ষের এমন ব্যবহারের জন্য তিনি বিচার দাবি করেছেন।

চাপের মুখে স্কুল কর্তৃপক্ষ তদন্তের ঘোষণা দিয়েছে। সেই অফিসারকে শাস্তি দেয়া হবে বলেও জানান হয়েছে। রোজভিল পুলিশ কর্তৃপক্ষ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ঘটনার পরপরই বিষয়টি স্থানীয় পুলিশকে অবহিত করা হয়। এছাড়া দায়ী ব্যক্তিকে তাৎক্ষণিকভাবে কাজ থেকে অব্যহতি দেয়া হয়। এছাড়া স্কুল কর্তৃপক্ষ বিষয়টি তদন্তের জন্য নর্থ ক্যারোলাইনা স্টেট ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে অনুরোধ করেছে।

ডে লোস সান্তোস ২০১২ সালের ফেব্রুয়ারিতে স্কুলে যোগদান করে। তবে কাজ থেকে অব্যহতি দেয়া হলেও দায়ী ব্যক্তিকে তদন্তকালীন সময়ে বেতন দেয়া হবে বলে স্কুল কর্তৃপক্ষের তরফে জানান হয়েছে।



সূত্রঃ ইন্টারনেট

Post A Comment: