সবচেয়ে উষ্ণতম বছর ২০১৬ বিশ্বের সবচেয়ে উষ্ণতম বছর ছিল ২০১৬। গত বছরের তাপমাত্রার তথ্যানুযায়ী ২০১৫ সালের গড় উষ্ণতাকে ছাড়িয়ে গেছে ২০১৬ সাল। নাসা এবং যুক্তরাজ্যের মেট অফিসের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৫ সাল থেকে ২০১৬ সালের গড় তাপমাত্রা ০.০৭ ডিগ্রী সেলসিয়াস বেশি ছিল। নাসার হিসাবে, এই নিয়ে পর পর তিন বছর তাপমাত্রা বৃদ্ধির রেকর্ড হলো।
 The-warmest-year-in-2016


 বিশ্বের সবচেয়ে উষ্ণতম বছর ছিল ২০১৬। গত বছরের তাপমাত্রার তথ্যানুযায়ী ২০১৫ সালের গড় উষ্ণতাকে ছাড়িয়ে গেছে ২০১৬ সাল। নাসা এবং যুক্তরাজ্যের মেট অফিসের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৫ সাল থেকে ২০১৬ সালের গড় তাপমাত্রা ০.০৭ ডিগ্রী সেলসিয়াস বেশি ছিল। নাসার হিসাবে, এই নিয়ে পর পর তিন বছর তাপমাত্রা বৃদ্ধির রেকর্ড হলো।


পৃথিবীর পূর্ব ও পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে শীতল ও উষ্ণ তাপমাত্রার চক্রের পরিবর্তন এবং কার্বন-ডাই-অক্সাইড নির্গমনের কারণে এই অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে জানিয়েছে বিজ্ঞানীরা। নাসার তথ্য অনুযায়ী, ২০১৬ সাল সবচেয়ে উষ্ণতম বছর।

নাসার জলবায়ুবিদ ডক্টর গেভিন শিমিট সংবাদমাধ্যম বিবিসিকে জানান, ‘ রেকর্ড মোতাবেক এখন পর্যন্ত ২০১৫ সাল সবচেয়ে উষ্ণতম বছর। কিন্তু ২০১৬ সাল ০.১-০.১২ ডিগ্রী সেলসিয়াসে ২০১৫ সালকে ছাড়িয়ে গেছে। বিগত বছরের সাথে তুলনা করলে তা বৃহৎ।’


তিনি বলেন, ‘আমরা খুবই পরিষ্কার তথ্য দেখতে পাচ্ছি। পূর্ব ও পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে শীতল ও উষ্ণ তাপমাত্রার চক্রের পরিবর্তন এবং গ্রীণ হাউজ গ্যাস বাড়ার কারণে উষ্ণতা বৃদ্ধি পাচ্ছে।’


২০১৬ সালে তাপমাত্রা বাড়ার অন্যতম কারণ হলো উত্তর মেরুতে অস্বাভাবিকভাবে উষ্ণতা বাড়া। বিশ্বের অনেক আবহাওয়া সংস্থা বৃহস্পতিবার ২০১৬ সালের তাপমাত্রা বৃদ্ধির উপর প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রতিবেদনে ২০১৬ সালকে সবচেয়ে উষ্ণতম বছর উল্লেখ করা হয়েছে। এল নিনোর (পূর্ব ও পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে শীতল ও উষ্ণ তাপমাত্রার চক্রের পরিবর্তন) কারণে এমনটি হয়েছে বলেও প্রতিবেদনগুলোতে দাবি করা হয়।

Post A Comment: