নায়করাজ রাজ্জাকের ৭৫ তম জন্মদিন আজ পঞ্চাশ বছরের অভিনয় জীবন, এখনো কাজ করেছেন সদর্পে। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে আধুনিক রোমান্টিক ধারার শুরু তার অভিনয়েই। নায়করাজ রাজ্জাকের ৭৫ তম জন্মদিন আজ। তাকে নিয়ে স্মৃতিচারণ করেছেন পরিচালক, অভিনয়শিল্পী ও বরেণ্য চিত্র সাংবাদিকরা।
 

পঞ্চাশ বছরের অভিনয় জীবন, এখনো কাজ করেছেন সদর্পে। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে আধুনিক রোমান্টিক ধারার শুরু তার অভিনয়েই। নায়করাজ রাজ্জাকের ৭৫ তম জন্মদিন আজ। তাকে নিয়ে স্মৃতিচারণ করেছেন পরিচালক, অভিনয়শিল্পী ও বরেণ্য চিত্র সাংবাদিকরা।


১৯৬৪ সালে পশ্চিম বাংলা থেকে পূর্ববাংলায় রাজ্জাক নাম নিয়ে এসেছিলেন যিনি, আজ তিনি বাংলাদেশের নায়করাজ। দেশের চলচ্চিত্রের ইতিহাস। জীবন্ত কিংবদন্তি।

বিশ্বাস, একাগ্রতা, অধ্যাবসায়ের মধ্য দিয়ে রাজ্জাক অর্জন করেছেন এই সম্মান। এদেশে এসে নিজের ভবিষ্যৎ গড়তে করেছেন অমানুষিক সংগ্রাম। দুই বছর, ট্যাক্সি ড্রাইভার, পাড়ার ছেলে, কোর্টের কর্মচারীর মতো ছোট চরিত্রে অভিনয়ের পর চোখে পরেন প্রখ্যাত চলচ্চিত্রকার জহির রায়হানের। ১৯৬৬ সালে মুক্তি পায় নায়ক রাজ্জাকের প্রথম সিনেমা বেহুলা।

এরপর শুধু সাফল্যগাঁথা। অভিনয় করেছেন তিনশোরও বেশি সিনেমায়। করেছেন পরিচালনা, হয়েছেন প্রযোজক। খ্যাতিমান আর ধনবান হয়েও সাধারণ হয়ে থেকেছেন সর্বস্তরের মানুষের মাঝে।

রাজ্জাক-কবরী জুটির সুনাম থাকলেও জুটি হয়ে শাবানার সাথে সবচেয়ে বেশি ৭৮টি সিনেমায় অভিনয় করেছেন রাজ্জাক। ববিতার সাথে ৫১টি, ৪১ টি সিনেমা কবরীর সাথে ও সুচন্দার বিপরীতে ২৫টি সিনেমায় অভিনয় করেছেন রাজ্জাক। পরিবর্তন এসেছে সবখানেই। একসময়ে চলচ্চিত্রে সবচেয়ে ব্যস্ত মানুষটি এখন নেই আর চলচ্চিত্রে। খুব বেছে হয়তো দু'একটি অতিথি চরিত্রে অভিনয় করেন, গত বছরে একাধিকবার হাসপাতালে ভর্তি হওয়া মানুষটি পরিবারের সাথেই কাটান বেশির ভাগ সময়।

Post A Comment: