জাদুশিল্পী জুয়েল আইচের বাড়ি হেলে পড়েছে দেশবরেণ্য জাদুশিল্পী জুয়েল আইচের জনপ্রিয়তা দেশের গন্ডি পেরিয়ে দেশের বাইরেও রয়েছে। তিনি কিন্তু ভালো বাঁশিও বাজাতে পারেন। কিন্তু সম্প্রতি তার উত্তরার বাড়ি হেলে পড়েছে। কারণ বিল্ডিং এর কোড না মেনেই তার বাড়ির পাশে আরেকটি ভবনের নির্মাণ কাজ চলছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ কারণে মারাত্মক ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে জুয়েল আইচের বাড়িটি।

দেশবরেণ্য জাদুশিল্পী জুয়েল আইচের জনপ্রিয়তা দেশের গন্ডি পেরিয়ে দেশের বাইরেও রয়েছে।  তিনি কিন্তু ভালো বাঁশিও বাজাতে পারেন। কিন্তু সম্প্রতি তার উত্তরার বাড়ি হেলে পড়েছে। কারণ বিল্ডিং এর কোড না মেনেই তার বাড়ির পাশে আরেকটি ভবনের নির্মাণ কাজ চলছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ কারণে মারাত্মক ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে জুয়েল আইচের বাড়িটি।



হেলে পড়া ভবনের বাসিন্দাদের মধ্যে বিরাজ করছে আতঙ্ক। এই ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরা ৩ নম্বর সেক্টরে। সেখানকার ১১ নম্বর সড়কের ১৩ নম্বর বাড়িটিই জাদুশিল্পী জুয়েল আইচের। এ বাড়ির পূর্বপাশেই নতুন ভবন নির্মাণের কাজ করছে বিল্ডিং টেকনোলজি অ্যান্ড আইডিয়াস (বিটিআই)।


এ পরিস্থিতিতে ভুক্তভোগী ও শঙ্কিত জুয়েল আইচ গণমাধ্যমের কাছে অভিযোগ করে বলেন, ‘নির্মাণ সংশ্লিষ্টদের একাধিকবার সতর্ক করার পরও তারা কাজ বন্ধ করেননি। বিল্ডিং কোড অনুযায়ী যে পরিমাণ জায়গা ফাঁকা রাখা দরকার তা বিটিআই নামের ডেভেলপার কোম্পানিটি ফাঁকা রাখছে না। তারা তাদের ভবনের গ্রাউন্ড ফ্লোরের মাটি কাটতে লোহার খুঁটিগুলো এমনভাবে বসিয়েছে যে, তাতে আমার সম্পূর্ণ বাড়িটি ভূমিকম্পের মতো কেঁপে উঠছে। যে কারণে আমার পরিবারসহ ভাড়াটিয়াদের মধ্যে প্রতিনিয়ত বিরাজ করছে আতঙ্ক। বিষয়টি সম্পর্কে ইতিমধ্যে রাজউকের চেয়ারম্যানকে জানানো হয়েছে।’

 
                           ফাটল ধরেছে জুয়েল আইচের বাড়ি।



এ অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সেখানকার বিটিআইর প্রজেক্টের ইনচার্জ জে সি হালদারের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এটি বড় কোনো সমস্যা নয়। ভবনের পিলারের সঙ্গে যুক্ত ইটের দেওয়ালের ফাটল মাত্র। এটি আমরা বুধবারের মধ্যেই ঠিক করে দেব। এ বিষয়ে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) চেয়ারম্যান মো. বজলুর করিম চৌধুরী জানান, ‘জুয়েল আইচ এ ব্যাপারে আমাকে ফোনে জানিয়েছেন। আমি তাকে লিখিতভাবে জানাতে বলেছি। সেটি পাওয়ার পর পরবর্তী করণীয় ঠিক করা হবে।’

Post A Comment: