বাংলাদেশে হালাল পণ্যের সনদ দিতে চায় ভারত বাংলাদেশের বাজারে খাদ্য পণ্যের হালাল সনদ দিতে চান ভারতের ব্যবসায়ীরা। সোমবার রাজধানীর মতিঝিলের ফেডারেশন ভবনে এফবিসিসিআইয়ের সঙ্গে ভারতের ‘ইন্ডিয়ান মুসলিম চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি’ (আইএমসিসিআই) প্রতিনিধি দলের বৈঠকে এ আগ্রহ প্রকাশ করেন তারা।
 India-wants-Bangladesh-to-halal-product-certification

বাংলাদেশের বাজারে খাদ্য পণ্যের হালাল সনদ দিতে চান ভারতের ব্যবসায়ীরা। সোমবার রাজধানীর মতিঝিলের ফেডারেশন ভবনে এফবিসিসিআইয়ের সঙ্গে ভারতের ‘ইন্ডিয়ান মুসলিম চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি’ (আইএমসিসিআই) প্রতিনিধি দলের বৈঠকে এ আগ্রহ প্রকাশ করেন তারা।


বৈঠকে ভারতের ব্যবসায়ীরা আরো বলেন, ‘মুসলিম চেম্বার হিসেবে ভারতে বিভিন্ন হালাল পণ্যের সার্টিফিকেট প্রদান করছি আমরা। বাংলাদেশ চাইলে এক্ষেত্রে সহযোগিতা নিতে পারে।’

এ সময় এফবিসিসিআই সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমাদ ষিয়টি নিয়ে বলেন, ‘বিশ্বের দুটি দেশ (ইন্দোনেশিয়া ও মালয়েশিয়া) হালাল পণ্যের সার্টিফিকেট দিয়ে থাকে। আপনাদের মান যদি আন্তর্জাতিক মানের হয় তাহলে আমরা বিবেচনা করবো।’

বৈঠকে ভারতের পক্ষে আইএমসিসিআইয়ের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ দাউদ খানের নেতৃত্বে ১৬ সদস্যের ব্যবসায়ী প্রতিনিধি অংশ নেয়।

অন্যদিকে, বাংলাদেশের পক্ষে এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি আব্দুল মাতলুব আহমাদ ও সংগঠনের সচিব হোসেন জামিলসহ অন্য ব্যবসায়ী নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

ভারতের ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘আমাদের দেশে ব্যবসায়ীদের উন্নয়নে প্রযুক্তিগত সহায়তা দিচ্ছি। আমরা বাংলাদেশের ব্যবসায়ীদেরও প্রযুক্তিগত সহায়তায় কাজ করতে চাই। বাংলাদেশের কোন কোন খাতে বিনিয়োগ করা যায় তা খুঁজে বের করতে কাজ করতে চাই। এজন্য একটি সমঝোতা স্মারক থাকা দরকার।’

এফবিসিসিবআই সভাপতি মাতলুব আহমাদ বলেন, ‘বাংলাদেশ-ভারতের ব্যবসায়ীদের মধ্যে সম্পর্ক আগের চেয়ে অনেক উন্নতি হয়েছে। বাংলাদেশ বর্তমানে বিনিয়োগ সম্ভাবনার দেশ। তাই চাইলে আপনারা দেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প (এসএমই) খাতে বিনিয়োগ করতে পারেন। ভারতের পক্ষ থেকে প্রযুক্তিগত সহায়তায় বিষয়ে যে সমঝোতা প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে তা দুপক্ষের অলোচনা সাপেক্ষে ঠিক করতে পারি।’

Post A Comment: