ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে যুক্তরাজ্যের সরে যাওয়া বা ব্রেক্সিট নিয়ে অনিশ্চয়তার মধ্যেও নতুন সিদ্ধান্ত নিচ্ছে ফেসবুক। লন্ডনে নতুন প্রধান কার্যালয় খুলতে যাচ্ছে তারা। আগামী বছর এই কার্যালয় চালু হলে সেখানে ৫০০ লোকের কর্মসংস্থান হবে। আজ সোমবার ফেসবুক কর্তৃপক্ষ এ ঘোষণা দিয়েছে।


ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে যুক্তরাজ্যের সরে যাওয়া বা ব্রেক্সিট নিয়ে অনিশ্চয়তার মধ্যেও নতুন সিদ্ধান্ত নিচ্ছে ফেসবুক। লন্ডনে নতুন প্রধান কার্যালয় খুলতে যাচ্ছে তারা। আগামী বছর এই কার্যালয় চালু হলে সেখানে ৫০০ লোকের কর্মসংস্থান হবে। আজ সোমবার ফেসবুক কর্তৃপক্ষ এ ঘোষণা দিয়েছে। 


ফেসবুক কর্তৃপক্ষের ভাষ্য, নতুন কার্যালয় খোলার মাধ্যমে যুক্তরাজ্যে ফেসবুকের কর্মীসংখ্যা ১ হাজার ৫০০ ছাড়াবে। যুক্তরাজ্যকে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের জন্য অন্যতম শ্রেষ্ঠ জায়গা হিসেবে উল্লেখ করেছে ফেসবুক।

সম্প্রতি গুগলও যুক্তরাজ্যের লন্ডন ক্যাম্পাস সম্প্রসারণ করে আরও তিন হাজার কর্মসংস্থান বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে। গুগলের ঘোষণা দেওয়ার এক সপ্তাহের মধ্যেই ফেসবুক কর্তৃপক্ষের কাছ থেকেও একই রকম ঘোষণা এল। 


ফেসবুকের কর্মকর্তা নিকোলা মেনডেলসন বলেন, ‘যুক্তরাজ্য ফেসবুকের গুরুত্বপূর্ণ অংশ। একটি তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান গড়ার জন্য অন্যতম জায়গা এটি। ২০০৭ সালে স্বল্পসংখ্যক লোক নিয়ে এখানে আসে ফেসবুক। আগামী বছরে এখানে ১ হাজার ৫০০ লোক নিয়ে একটি প্রধান কার্যালয় খোলার পরিকল্পনা করছি।’


এখানে উচ্চ দক্ষতাসম্পন্ন প্রকৌশলীরা চাকরি পাবেন। যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে ফেসবুকের বড় প্রকৌশলগত ভিত্তি হবে যুক্তরাজ্য। 


ফেসবুকের একজন মুখপাত্র বলেছেন, যুক্তরাজ্যে ফিজরোভিয়াতে নতুন ভবন নির্মাণের কাজ চলছে। লন্ডনের মেয়র সাদিক খান ফেসবুকের এ পরিকল্পনাকে স্বাগত জানিয়েছেন।





Post A Comment: