কোমর বা মাজায় ব্যথা। কিডনি খারাপ হয়ে গেল না তো? এ নিয়ে সবাই দুশ্চিন্তায় পড়ে যায়। পেছনে বা মাজায় দুই হাত দিয়ে দেখায়—আমার কিডনি নষ্ট হলো নাকি, ডাক্তার সাহেব? আসলে কিডনি ফেইলিউর বা কিডনি অকার্যকারিতায় সাধারণত কোনো ব্যথা-বেদনা হয় না। এর উপসর্গ ভিন্ন। তবে কিডনিতে পাথর হলে সার্বক্ষণিক মৃদু একটা ব্যথা হতে পারে। কিডনির সংক্রমণে ব্যথা হতে পারে। কিডনির পাথর মূত্রনালি বা মূত্রতন্ত্রের অন্য কোথাও চলে এলে তীব্র ব্যথায় রোগী গড়াগড়ি খায়। সাধারণ কোমর ব্যথার সঙ্গে এর মিল নেই।




কোমর বা মাজায় ব্যথা। কিডনি খারাপ হয়ে গেল না তো? এ নিয়ে সবাই দুশ্চিন্তায় পড়ে যায়। পেছনে বা মাজায় দুই হাত দিয়ে দেখায়—আমার কিডনি নষ্ট হলো নাকি, ডাক্তার সাহেব? আসলে কিডনি ফেইলিউর বা কিডনি অকার্যকারিতায় সাধারণত কোনো ব্যথা-বেদনা হয় না। এর উপসর্গ ভিন্ন। তবে কিডনিতে পাথর হলে সার্বক্ষণিক মৃদু একটা ব্যথা হতে পারে। কিডনির সংক্রমণে ব্যথা হতে পারে। কিডনির পাথর মূত্রনালি বা মূত্রতন্ত্রের অন্য কোথাও চলে এলে তীব্র ব্যথায় রোগী গড়াগড়ি খায়। সাধারণ কোমর ব্যথার সঙ্গে এর মিল নেই।


তার মানে, বেশির ভাগ কোমর ব্যথার কারণ কিডনি নয়। এর বেশির ভাগটাই মেরুদণ্ডের হাড় ও সন্ধি বা পেশির সমস্যা। হাড় ক্ষয় হলে মেরুদণ্ডে কমপ্রেশন ফ্র্যাকচার হতে পারে। হতে পারে মেরুদণ্ডের যক্ষ্মা এমনকি টিউমার। কোমরের হাড়ে বাত, অস্টিওআথ্রাইটিস, স্পনডাইলাইটিস, ডিস্ক প্রলাপস বা সরে যাওয়ার কারণে ব্যথা হয়। সবচেয়ে বেশি ক্ষেত্রে ব্যথাটা মেকানিক্যাল, অর্থাৎ কোমরের বা মেরুদণ্ডের হাড়ের ওপর চাপ বা ভুল দেহভঙ্গির কারণে। গাড়িতে বসে লম্বা ভ্রমণ, অতিরিক্ত ভার বহন, দীর্ঘ সময় দাঁড়িয়ে বা বসে কাজ করা, কোমর বাঁকা করে কাজ করা ইত্যাদি হলো এর কারণ। এসব ক্ষেত্রে বিশ্রাম ও সাধারণ ব্যথানাশক এবং দেহভঙ্গি ঠিক করাই চিকিৎসা। অন্যান্য ক্ষেত্রে সঠিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে কারণ জেনে চিকিৎসা করতে হবে।

Post A Comment: