নন স্ট্রাইকিং প্রান্তে দাঁড়িয়ে থাকা কুমার সাঙ্গাকারা এক হাতে ব্যাট উঁচিয়ে গ্লাভস পরা অন্য হাতেই একটা টোকা মারলেন। যেন বলতে চাইলেন, ‘বেড়ে খেললে বাছা!’

তা মেহেদী মারুফকে ‘বাছা’ তিনি বলতেই পারেন। কেবল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেই ২৮ হাজারের বেশি রান। আর মারুফের তো অভিষেকই হয়নি এখনো। সাঙ্গাকারার মতো একজনকে সঙ্গে নিয়ে ওপেন করতে নামার সময় ২৮ বছর বয়সী মারুফের কেমন রোমাঞ্চ হচ্ছিল, অনুমান করে নেওয়াই যায়। সেই রোমাঞ্চ দ্রুতই নিজের ব্যাটে ছড়িয়ে দিলেন। তাঁর ৪৫ বলে অপরাজিত ৭৫ রানের ইনিংসে বরিশাল বুলসকে ৮ উইকেটে হারাল ঢাকা ডায়নামাইটস। 


শাহরিয়ার নাফীসের ৫৫ ও মুশফিকুর রহিমের অপরাজিত ৫০-এ প্রথমে ব্যাট করে ৬ উইকেটে ১৪৮ তুলেছিল বরিশাল। ২৪ বল হাতে রেখে অনায়াসে নিজেদের প্রথম ম্যাচ জিতে নিল ঢাকা। অর্ধেকের বেশি কাজ সেরে রেখেছিল সাঙ্গাকারা-মারুফের ৫২ বলে গড়া ৮৮ রানের ওপেনিং জুটিটাই। যে জুটিতে সাঙ্গার অবদানই কম, মাত্র ৩০। দ্বিতীয় উইকেটেও সাকিব আল হাসানের সঙ্গে ৪৮ রানের জুটি গড়লেন মারুফ। এখানেও সাকিবের অবদান ২০ রান।


৫টি করে চার-ছক্কা হাঁকিয়ে অপরাজিত থেকেই ফিরলেন। ম্যাচ শেষের সাক্ষাৎকারে সাঙ্গা প্রশংসা করতে বাধ্যই হলেন—‘বেশ বেড়ে খেলেছে ছেলেটা!’

Post A Comment: