খাদিজাকে দেখতে গিয়ে নারী এমপি সাবিনা আক্তার তুহিনের সেলফি তোলা নিয়ে ভার্চুয়াল জগতে সমালোচনার ঝড় বয়ে জায়। বুধবার সন্ধ্যা ৭টার দিতে নিজের ফেসবুক টাইমলাইনে এ ছবি পোস্ট করেন সাবিনা আক্তার তুহিন এমপি। ফেসবুকের ওই ছবিতে যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য অপু উকিলসহ আরেকজন নারী ছিলেন। খাদিজা মারা গেছে বলে যে গুজব ছড়িয়ে পরে, সাবিনা আক্তার তুহিনের সেলফি তোলার উদ্দেশ্য ছিল খাদিজা বেঁচে আছে এটা জানানোর জন্য। তবে বদরুলের ফাঁসি চেয়ে নির্মম ঘটনার নিন্দা করে সট্যাটাস/সেলফি দেয়ায় তাকে নিয়ে অনেকেই সমালোচনা করেছে। তাই বৃহস্পতিবার সকাল দশটায় আরেকটি সট্যাটাসে বলেন যদি তার ঐ সেলফিতে যদি ভুল হয়ে থাকে তবে তিনি ক্ষমা পার্থী।

খাদিজাকে দেখতে গিয়ে  নারী এমপি সাবিনা আক্তার তুহিনের সেলফি তোলা নিয়ে ভার্চুয়াল জগতে সমালোচনার ঝড় বয়ে জায়। বুধবার সন্ধ্যা ৭টার দিতে নিজের ফেসবুক টাইমলাইনে এ ছবি পোস্ট করেন সাবিনা আক্তার তুহিন এমপি। ফেসবুকের ওই ছবিতে  যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য অপু উকিলসহ আরেকজন নারী ছিলেন।

 

খাদিজা মারা গেছে বলে যে গুজব ছড়িয়ে পরে।
এমপি সাবিনা আক্তার তুহিনের সেলফি তোলার উদ্দেশ্য ছিল খাদিজা বেঁচে আছে এটা জানানোর জন্য।

তবে বদরুলের ফাঁসি চেয়ে নির্মম ঘটনার নিন্দা করে সট্যাটাস/সেলফি দেয়ায় তাকে নিয়ে অনেকেই সমালোচনা করেছে। তাই বৃহস্পতিবার সকাল দশটায় আরেকটি সট্যাটাসে
এমপি সাবিনা আক্তার তুহিন বলেন যদি তার ঐ সেলফিতে যদি ভুল হয়ে থাকে তবে তিনি ক্ষমা পার্থী। 

 

Post A Comment: