সন্তান স্কুলে গেলো কি-না বা কখন স্কুলে পৌছালো, কখন স্কুল বের হলো-এই সব তথ্য তাৎক্ষনিক ভাবেই জানতে পারবেন অবিভাবক।এছাড়া গাড়ি কোথায় আছে তার ভিডিও দেখা যাবে ঘরে বসে। বাসায় না থাকলে বাসার সামনে কেউ আসলে তার ছবিও চলে আসবে ঘরের মালিকের মোবাইলে। এমন অ্যাপ বাজারে ছাড়ার জন্য প্রস্তুত সেবা টেকনোলেজিস।


সন্তান স্কুলে গেলো কি-না বা কখন স্কুলে পৌছালো, কখন স্কুল বের হলো-এই সব তথ্য তাৎক্ষনিক ভাবেই জানতে পারবেন অবিভাবক।এছাড়া গাড়ি কোথায় আছে তার ভিডিও দেখা যাবে ঘরে বসে। বাসায় না থাকলে বাসার সামনে কেউ আসলে তার ছবিও চলে আসবে ঘরের মালিকের মোবাইলে। এমন অ্যাপ বাজারে ছাড়ার জন্য প্রস্তুত সেবা টেকনোলেজিস।

সেবা টেকনোলেজিস এর প্রোডাক্ট ম্যানেজার ফারহান ইসলাম বলেন, সন্তানের নিরাপত্তার জন্য অ্যাপ করা হয়েছে। যেমন স্টুডেন্ট সেফটি, জিই্ও লোকেশন ট্র্যাকিং, রিয়াল টাইম এ্যালার্ট, অটোমেটিক এ্যাটেডেস্ট, ভেইক্যাল টেলিমেটিক ফর স্কুল বাস। 
তিনি বলেন, স্কুলে একটি সিস্টেম থাকবে। যেখানে শিক্ষার্থীর ডাটা এন্ট্রি করা থাকবে। যদি শিক্ষার্থী স্কুলে না আসে তাহলে তা অ্যাপের মাধ্যমে জেনে যাবেন অবিভাবক। সন্তানদের স্কুল ব্যাগে আরএফআইডি লাগানো হবে। যার কারনে জানা যাবে সন্তান কখন কোথায় আছে। অমেরিকাতে একটি স্কুলে এই পদ্ধতি চালু আছে। বাংলাদেশেও বাজারজাত করার জন্য প্রস্তুত রয়েছে সেবা টেকনোলেজিস। 

ভেইক্যাল ট্রাকিং সিস্টেসে জানা যাবে গাড়ির অবস্থান। গাড়িতে গোপনে একটি জিপিএস ডংগল লাগিয়ে দেওয়া হবে। গাড়ি ছিনতাই হলেও ওই ডিভাইসের মাধ্যমে জানা যাবে গাড়িটি কোথায় আছে। এছাড়া ব্যক্তিগত চালক কোথায় আছে, বাসায় বসে সফটওয়্যারে ধারনকরা ভিডিওর মাধ্যমে দেখা যাবে সেই রাস্তা।

তিনি আরো বলেন, আপনি বাসায রইলেন না। কিন্তু কেউ একজনে আপনার কাছে আসলো।আপনার দরজার সামনে দাঁড়ালেই মূহুর্তের মধ্যে তার ছবি চলে আসবে আপনার মোবাইলে। আপনি দেখতে পাবেন কে আছে আপনার বাসার সামনে। 
তিনি বলেন, এই সব কিছুকে সারা্উন্ড সেফটি সিস্টেম বলা হয়। সেবা টেকনোলজিস ডেসকারা নামে একটি রিনাউনস ইআরপি সোলশন নিয়ে এসেছে। এটি হচ্ছে একটি ক্লাউড বেস স্যলুশন। 

বুধবার থেকে আইসিসিবি-তে শুরু হয় তিন দিনব্যাপী ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড ২০১৬। সকাল ১১টায় উন্মুক্ত করে দেওয়া হয় সকলের জন্য। চলে রাত ৮টা পর্যন্ত। মেলার আয়োজন করে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগ। সহ–আয়োজক বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল, অ্যাকসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) ও বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস।

Post A Comment: