উপকরণ – মাংস, ১ কেজি – পেঁয়াজ কুঁচি বা বাটা, এক কাপ – আদা বাটা, দুই টেবিল চামচ – রসুন বাটা, দুই টেবিল চামচ – জিরা গুড়া, ১ চা চামচ – কাঁচা মরিচ বাটা, তিন চা চামচ (ঝাল বুঝে) – গোল মরিচ বাটা, আধা চা চামচ (ঝাল বুঝে) – জয়ত্রী বাটা, হাফ চা চামচ – জয়ফল বাটা, এক চিমটি – বাদাম বাটা, হাফ কাপ – গরম মশলা (এলাচি কয়েকটা, দারুচিনি কয়েক পিস) – লবন, পরিমান মত – চিনি, এক চা চামচ – কিসমিস, এক টেবিল চামচ – ভিনেগার, এক চা চামচ – দুধ, ঘন এক কাপ – কয়েকটা আস্ত কাঁচা মরিচ – তেল, দেড় কাপ কম বেশি – পানি



উপকরণ

– মাংস, ১ কেজি
– পেঁয়াজ কুঁচি বা বাটা, এক কাপ
– আদা বাটা, দুই টেবিল চামচ
– রসুন বাটা, দুই টেবিল চামচ
– জিরা গুড়া, ১ চা চামচ
– কাঁচা মরিচ বাটা, তিন চা চামচ (ঝাল বুঝে)
– গোল মরিচ বাটা, আধা চা চামচ (ঝাল বুঝে)
– জয়ত্রী বাটা, হাফ চা চামচ
– জয়ফল বাটা, এক চিমটি
– বাদাম বাটা, হাফ কাপ
– গরম মশলা (এলাচি কয়েকটা, দারুচিনি কয়েক পিস)
– লবন, পরিমান মত
– চিনি, এক চা চামচ
– কিসমিস, এক টেবিল চামচ
– ভিনেগার, এক চা চামচ
– দুধ, ঘন এক কাপ
– কয়েকটা আস্ত কাঁচা মরিচ
– তেল, দেড় কাপ কম বেশি
– পানি


প্রনালী
তেল গরম করে সামান্য লবন যোগে উপরের সব মশলাপাতি (দুধ, কিসমিস, ভিনেগার, চিনি বাদে) দিয়ে ভাল করে কষাতে থাকুন।কষিয়ে তেল উঠিয়ে নিন।


এবার গোসত দিয়ে দিন এবং ভাল করে মিশিয়ে নিন।এবার ভিনেগার, চিনি দিয়ে হাফ কাপ পানি দিয়ে মাধ্যম আঁচে ঢাকনা দিয়ে দিন। মিনিট ২০ লাগতে পারে। মাঝে মাঝে ঢাকনা উলটে দেখে ও নাড়িয়ে দিতে হবে।দুধ দিয়ে দিন।কিসমিস গুলো দিয়ে দিন। আবারো কিছু সময়ের জন্য মাধ্যম আঁচে ঢাকনা দিয়ে রেখে দিন। ঝোল কেমন রাখবেন এটা আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন।ফাইন্যাল লবন চেক করুন। লাগলে দিন। কয়েকটা কাঁচা মরিচ দিয়ে দিন, দেখতে ভাল লাগবে।


ব্যস, পরিবেশনের জন্য প্রস্তুত।

Post A Comment: