প্রথমবার হজ বা ওমরাহ করতে যাওয়া ব্যক্তিদের সৌদি আরব যেতে কোনো ধরনের ভিসা ফি দিতে হবে না। নতুন সংশোধিত ভিসা নীতিতে দেশটির সরকার এ কথা জানিয়েছে। এ ছাড়া দেশটিতে পর্যটক এবং কর্মরত প্রবাসীদের জন্য নতুন ভিসা ফি নির্ধারণ করা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের বরাতে জানিয়েছে আরব নিউজ।



প্রথমবার হজ বা ওমরাহ করতে যাওয়া ব্যক্তিদের সৌদি আরব যেতে কোনো ধরনের ভিসা ফি দিতে হবে না। নতুন সংশোধিত ভিসা নীতিতে দেশটির সরকার এ কথা জানিয়েছে। এ ছাড়া দেশটিতে পর্যটক এবং কর্মরত প্রবাসীদের জন্য নতুন ভিসা ফি নির্ধারণ করা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের বরাতে জানিয়েছে আরব নিউজ।


গত সোমবার সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন নায়েফের সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার এক বৈঠকে নতুন ঘোষিত নীতিতে সৌদি আরবে ছয় মাসের সিঙ্গেল এন্ট্রি ভিসার ফি নির্ধারণ করা হয়েছে প্রায় ৪২ হাজার টাকা (২ হাজার সৌদি রিয়াল বা ৫৩৩ মার্কিন ডলার)। এ ছাড়া ছয় মাসের মাল্টিপল এন্ট্রি ভিসার জন্য তিন হাজার রিয়াল,এক বছরের জন্য পাঁচ হাজার রিয়াল এবং তিন বছরের জন্য আট হাজার রিয়াল নির্ধারণ করা হয়েছে।


সোমবারের সিদ্ধান্তের পর গত মঙ্গলবার সৌদি মন্ত্রিপরিষদের ঘোষিত সংশোধিত ভিসা ফি নীতিতে বলা হয়, প্রথমবারের মতো সৌদি আরবে হজ ও ওমরাহ করতে আসা ব্যক্তিদের ভিসা ফি  বহন করবে দেশটির সরকার। আর এই নতুন ভিসানীতি আগামী ২ অক্টোবর থেকে কার্যকর হবে।


সংশোধিত ভিসা ফি নীতিতে বলা হয়,সৌদি আরব হয়ে অন্য দেশে যাতায়াতের জন্য বা যাত্রাবিরতির জন্য ট্রানজিট ভিসা ফি গুণতে হবে ৮০ ডলার। আর সৌদি আরবের সমুদ্র বন্দর দিয়ে বাইরে ভ্রমণের ক্ষেত্রে ‘এক্সিট ভিসা ফি’ হবে ১৩ ডলার।


দেশটিতে ‘রেসিডেন্ট পারমিট’ নিয়ে কর্মরতরা একবারের জন্য দুই মাসের জন্য সৌদি আরবের বাইরে ভ্রমণের ক্ষেত্রে ‘এক্সিট অ্যান্ড রি-এন্ট্রি ফি’ হবে ৫৩ ডলার। ‘রেসিডেন্ট পারমিট’ থাকা পর্যন্ত পরবর্তী মাসের জন্য অতিরিক্ত গুণতে হবে প্রায় ২৭ ডলার করে।


তিন মাসের জন্য একাধিক ভ্রমণের ক্ষেত্রে ‘এক্সিট অ্যান্ড রি-এন্ট্রি ফি’ ১৩৩ ডলার। এ ক্ষেত্রে ‘রেসিডেন্ট পারমিট’ থাকা পর্যন্ত পরবর্তী মাসের জন্য অতিরিক্ত গুণতে হবে আরো ৫৩ ডলার করে।


Post A Comment: