রাজধানী ঢাকায় রেস্তোরাঁর কমতি নেই। তবে কোন রেস্তোরাঁ ভালো এবং সেটি কেন ভালো, তা জানার কোনো ভালো উৎসও নেই। ফেসবুক-নির্ভর তরুণেরা এ থেকে কিছু তথ্য পেলেও ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা সে তথ্য দরকারের সময় পাওয়া যায় না। মূলত সে প্রয়োজনের কথা অনুভব করেই আদীব শামস ও তাঁর দল তৈরি করেছে রেস্তোরাঁ খোঁজার অ্যাপ হারিকেন।



রাজধানী ঢাকায় রেস্তোরাঁর কমতি নেই। তবে কোন রেস্তোরাঁ ভালো এবং সেটি কেন ভালো, তা জানার কোনো ভালো উৎসও নেই। ফেসবুক-নির্ভর তরুণেরা এ থেকে কিছু তথ্য পেলেও ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা সে তথ্য দরকারের সময় পাওয়া যায় না। মূলত সে প্রয়োজনের কথা অনুভব করেই আদীব শামস ও তাঁর দল তৈরি করেছে রেস্তোরাঁ খোঁজার অ্যাপ হারিকেন।


‘হারিকেন দিয়ে খোঁজা’ বলে আঞ্চলিক একটি কথা প্রচলিত আছে। হন্যে হয়ে খুঁজেও যখন কিছু পাওয়া যাচ্ছে না, তখন হারিকেনের আলো দিতে পারে সমাধান—রেস্তোরাঁর ক্ষেত্রে হারিকেন অ্যাপের ধারণাটা এমন বলেই গতকাল রোববার মুঠোফোনে জানিয়েছেন হারিকেন ডটকম লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আদীব শামস। তিনি বলেন, ‘গত বছরের নভেম্বরে আমরা কাজ শুরু করি। মাস দুয়েক হলো অ্যাপটি অ্যান্ড্রয়েড ও আইওএস চালিত স্মার্টফোনে ব্যবহারের জন্য ছাড়া হয়েছে।’


স্মার্টফোনে নামিয়ে প্রথমে ফেসবুক বা ই-মেইলের মাধ্যমে নিবন্ধন সেরে লগ–ইন করতে হয়। এরপরেই পাওয়া যাবে হারিকেনের মূল পাতা। শুরুতেই সেই রেস্তোরাঁ খোঁজার সেবা। রেস্তোরাঁটির ধরন, কী ধরনের খাবার পাওয়া যায় কিংবা রেস্তোরাঁর নাম দিয়েও খোঁজা যাবে। আদীব বলেন, ‘ধরুন, আমার আশপাশে নির্দিষ্ট একটা দূরত্ব পর্যন্তও রেস্তোরাঁ খোঁজা যাবে।’


রাজধানী থেকে কাজ শুরু করেছে হারিকেন দল। রাজধানীর রেস্তোরাঁগুলোর একটি ডেটাবেইস তৈরির কাজ চলছে, এখন পর্যন্ত ২ হাজার ৮০০-এর কিছু বেশি রেস্তোরাঁ যোগ করা হয়েছে এতে। রেস্তোরাঁর নাম, ঠিকানা, মানচিত্রে অবস্থান, ফোন নম্বর, খাবারের মেন্যু, কতক্ষণ খোলা থাকে ইত্যাদি তথ্য পাওয়া যাবে। সেই সঙ্গে যাঁদের রেস্তোরাঁটিতে যাওয়ার অভিজ্ঞতা আছে, তাঁরা এটি সম্পর্কে তাঁদের পর্যালোচনা (রিভিউ) জানাতে পারবেন। ফেসবুকের মতো হারিকেন অ্যাপেও কাউকে অনুসরণ (ফলো) বা রেস্তোরাঁয় চেক-ইন করা যাবে, বন্ধুতালিকার কর্মকাণ্ড দেখা যাবে।


হারিকেন এখন ১০ তরুণের নতুন ব্যবসায় উদ্যোগ (স্টার্টআপ)। আদীব শামস বলেন, ‘আমাদের তরুণ দলটি কিন্তু বেশ উদ্যমের সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছে। বাংলাদেশে তৈরি, বাংলাদেশের জন্য তৈরি বলে আমরা হ্যাশট্যাগ হিসেবে #ProudlyMadeInBangladesh বেছে নিয়েছি।’


অ্যাপ নামানোর ঠিকানা:
অ্যান্ড্রয়েড: https://goo.gl/ETfKfT
আইওএস: https://goo.gl/FpFOKO

Post A Comment: