বিষধর সাপই সঙ্গী তার। সেরা বন্ধুও। আর পাঁচটা সাধারণ মানুষের কাছে আতঙ্কের হলেও ন’বছরের সাহেব আলমের ওঠাবসা তাদের সঙ্গেই। এরাই নাকি সবসময় রক্ষা করে সাহেবকে। ভারতের উত্তরপ্রদেশের বস্তি জেলার বাসিন্দা সাহেব আলমের এই অদ্ভুত জীবনযাত্রা দেখে চমকে যান অনেকেই। জানা গেছে, নয় বছরের সাহেবের পড়াশোনাতেও ঝোঁক রয়েছে। বন্ধুর এই ইচ্ছার কথা হয়তো বুঝতে পারে বিষধর সাপগুলি। ফনা তুলে পাহারাদারের কাজ করে তারা। কখনও খাটের উপরে তো কখনও নীচে। সাহেবের সঙ্গেই রয়েছে তারা। বন্ধুদের ফোঁসফাঁসে আতঙ্কিত নয় সাহেবও।



বিষধর সাপই সঙ্গী তার। সেরা বন্ধুও। আর পাঁচটা সাধারণ মানুষের কাছে আতঙ্কের হলেও ন’বছরের সাহেব আলমের ওঠাবসা তাদের সঙ্গেই। এরাই নাকি সবসময় রক্ষা করে সাহেবকে। ভারতের উত্তরপ্রদেশের বস্তি জেলার বাসিন্দা সাহেব আলমের এই অদ্ভুত জীবনযাত্রা দেখে চমকে যান অনেকেই।
জানা গেছে, নয় বছরের সাহেবের পড়াশোনাতেও ঝোঁক রয়েছে। বন্ধুর এই ইচ্ছার কথা হয়তো বুঝতে পারে বিষধর সাপগুলি। ফনা তুলে পাহারাদারের কাজ করে তারা। কখনও খাটের উপরে তো কখনও নীচে। সাহেবের সঙ্গেই রয়েছে তারা। বন্ধুদের ফোঁসফাঁসে আতঙ্কিত নয় সাহেবও।


সাহেবের বাবা নিজেও সাপুড়ে। কোথাও বিষধর সাপ আছে খবর পেলে ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে সেখানে পৌঁছে যান তিনি। বাড়িতে নিয়ে আসেন সাপটিকে। এভাবেই একাধিক সাপ রয়েছে সাহেবদের বাড়িতে। বাবার কাছ থেকেই সাপকে বন্ধু বানানোর শিক্ষা পেয়েছে সাহেব। দাদাকে দেখে বিষধর সাপেদের প্রতি ভালোবাসা বাড়ছে সাহেবের ভাইয়েদেরও।

Post A Comment: