দেশের একমাত্র রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন মোবাইল ফোন অপারেটর টেলিটকের স্বনির্ভরতা অর্জনে এবং প্রতিযোগিতামূলক বাজারে টিকে থাকতে ২০১৮ সালের মধ্যে সকল উপজেলা থ্রি জি নেটওয়ার্কের আওতায় আসছে। ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম টেলিটকের নেটওয়ার্ক শক্তিশালী করতে আজ দু’বছরের একটি পরিকল্পনা ঘোষণা করেন। প্রতিমন্ত্রী আজ সকালে এই অপারেটরের অফিস পরিদর্শন কালে সাংবাদিকদের জানান, আমরা পরিকল্পনা নিয়েছি, আগামী দু’বছরের মধ্যে দেশের সকল উপজেলা থ্রি জি নেটওয়ার্কের আওতায় নিয়ে আসব। তিনি টেলিটকের বিভিন্ন আধুনিকায়ন ও আপ-গ্রেডেশন প্রকল্পের উল্লেখ করে বলেন, আমি আগামী দু’বছরের মধ্যে অন্যান্য মোবাইল অপারেটরের সাথে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকার সক্ষমতা অজর্ণের চ্যালেঞ্জ নিয়েছি এবং এ জন্য অতিরিক্ত কোন সুবিধা না নিয়েই এটি আমি করব।



দেশের একমাত্র রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন মোবাইল ফোন অপারেটর টেলিটকের স্বনির্ভরতা অর্জনে এবং প্রতিযোগিতামূলক বাজারে টিকে থাকতে ২০১৮ সালের মধ্যে সকল উপজেলা থ্রি জি নেটওয়ার্কের আওতায় আসছে। ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম টেলিটকের নেটওয়ার্ক শক্তিশালী করতে আজ দু’বছরের একটি পরিকল্পনা ঘোষণা করেন। প্রতিমন্ত্রী আজ সকালে এই অপারেটরের অফিস পরিদর্শন কালে সাংবাদিকদের জানান, আমরা পরিকল্পনা নিয়েছি, আগামী দু’বছরের মধ্যে দেশের সকল উপজেলা থ্রি জি নেটওয়ার্কের আওতায় নিয়ে আসব। তিনি টেলিটকের বিভিন্ন আধুনিকায়ন ও আপ-গ্রেডেশন প্রকল্পের উল্লেখ করে বলেন, আমি আগামী দু’বছরের মধ্যে অন্যান্য মোবাইল অপারেটরের সাথে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকার সক্ষমতা অজর্ণের চ্যালেঞ্জ নিয়েছি এবং এ জন্য অতিরিক্ত কোন সুবিধা না নিয়েই এটি আমি করব।


তারানা বলেন, টেলিটক দু’টি পৃথক প্রকল্পের অধীনে ২০১৭ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে মোট ২ হাজার ৯শ’টি ট্রান্সসিভার ও থ্রি’জির জন্য ২ হাজার নোড স্থাপন করতে যাচ্ছে। তিনি বলেন, এর অংশ হিসাবে টেলিটক ইউনিয়ন পযার্য়ে থ্রি’জি কভারে আরো একটি প্রকল্প বাস্তবায়নের চিন্তাভাবনা করছে। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ২ হাজার ৩০০ কোটি টাকা ব্যয়ের একটি উন্নয়ন প্রকল্প প্রোফর্মা শিগগির মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে। বর্তমানে টেলিটক সারাদেশে ৩৭৫০ টু’জি বিটিএসএস এবং ১ হাজার ৫৬২ নোড বিএস দিয়ে পরিচালিত হচ্ছে। পাশাপাশি অপারেটর বর্তমানের ২৬ হাজার রিটেইলারের সাথে আরো ৫০ হাজার রিটেইলার সংযুক্ত করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। তারানা হালিম সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য করে বলেন, আমাদের অগ্রগতি সম্পর্কে অবহিত করতে আমি ছয় মাস পর পর আপনাদের সঙ্গে মিলিত হব। প্রতিমন্ত্রী বিকাশ ওয়ালেট ব্যবহার করে টেলিটক হিসাবের রিচার্জ সুবিধারও উদ্বোধন করেন। বর্তমানে টেলিটক গ্রাহকেরা স্ক্রাচ কার্ড ও রিচার্জ পয়েন্ট থেকে বিকাশ ওয়ালেট ব্যবহার করে তাদের একাউন্ট রিচার্জ করতে পারে। তারানা হালিম টেলিটক কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে ভয়েজ অব ইন্টারনেট প্রটোকল (ভিওআইপি) এর অবৈধ ব্যবহার সম্পর্কে সতর্ক করে দেন। তিনি তাদেরকে সতর্ক করে দিয়ে বলেন, আমি ভিওআইপি নিয়ে কোন অভিযোগ শুনতে রাজি না।

Post A Comment: