ভাজা ভাজা গরুর মাংস পরোটা কিংবা পোলাও দিয়ে খেতে চরম লাগে। হয়তো রেস্টুরেন্টে খেয়েছেন, এবার বাসায়ই তৈরী করুন মজাদার মুখোরোচক এই খাবারটি। দুই ধাপে তৈরী করতে হলেও খুব একটা কঠিন না এই রান্নাটি। রেসিপি দিয়েছেন আনার সোহেল।


ভাজা ভাজা গরুর মাংস পরোটা কিংবা পোলাও দিয়ে খেতে চরম লাগে। হয়তো রেস্টুরেন্টে খেয়েছেন, এবার বাসায়ই তৈরী করুন মজাদার মুখোরোচক এই খাবারটি। দুই ধাপে তৈরী করতে হলেও খুব একটা কঠিন না এই রান্নাটি। রেসিপি দিয়েছেন আনার সোহেল।


উপকরণ


প্রথম ধাপ: গরুর মাংস ১ কেজি (ছোট করে কাটতে হবে)। আদাবাটা ১ টেবিল-চামচ। রসুনবাটা ২ চা-চামচ। পেঁয়াজবাটা ১ টেবিল-চামচ। লবণ স্বাদ মতো। মরিচগুঁড়া ২ চা-চামচ। হলুদগুঁড়া ২ চা-চামচ। জিরাগুঁড়া ২ চা-চামচ। ধনেগুঁড়া ২ চা-চামচ। মাংসের মসলা ২ চা-চামচ (বাজারে পাবেন কিংবা নিজেও তৈরি করতে পারেন)। দারুচিনি ২ টুকরা। তেজপাতা ২টি। এলাচি ৩ থেকে ৪টি। লবঙ্গ ৩,৪টি। গরম মসলাগুঁড়া ২ চা-চামচ। সরিষার তেল ৪ টেবিল-চামচ।
দ্বিতীয় ধাপ: টালা জিরাগুঁড়া ২ চা-চামচ। পেঁয়াজকুচি ১টি। কাঁচামরিচ ৪,৫টি। তেল ১ কাপ।


পদ্ধতি


প্রথম ধাপ: মাংস কেটে ধুয়ে, পানি ঝরিয়ে সব গুঁড়ামসলা, লবণ, বাটামসলা আর সরিষার তেল দিয়ে মাখিয়ে নিন।
এখন রান্নার পাত্রে তিন টেবিল-চামচ তেল গরম করে, অল্প পেঁয়াজকুচি বাদামি রং করে ভেজে আস্ত গরম মসলাগুলো দিয়ে দিন। ভাজা হলে মাংস দিয়ে ১০ মিনিট কষিয়ে তিন কাপ গরম পানি যোগ করে নেড়ে ঢেকে সিদ্ধ হওয়া পর্যন্ত রান্না করুন।
মাঝে মাঝে নেড়ে দিন যেন পাতিলের তলায় লেগে না যায়। মাংস সিদ্ধ হয়ে পানি শুকিয়ে গেলে নামিয়ে নিন।


দ্বিতীয় ধাপ: অপর একটি কড়াইতে এক কাপের মতো তেল গরম করে পেঁয়াজকুচি দিয়ে ভাজুন।
পেঁয়াজ হালকা বাদামি রং হলে মাংসগুলো তুলে এই তেলে দিন। মাঝারি আঁচে মাংসগুলো ভাজুন। ভাজা হলে টালা জিরাগুঁড়া আর কাঁচামরিচ উপর দিয়ে ছড়িয়ে নামিয়ে ফেলুন।
পোলাও, নানরুটি, পরোটা সঙ্গে পরিবেশন করুন।

Post A Comment: