‘হিরোপান্তি’ ছবি দিয়ে বলিউডে যাত্রা করেন টাইগার শ্রফ। শুরুতেই সফলতা পেয়ে যান। এরপর থেকে ছেলেটিকে নিয়ে আলোচনার কমতি নেই। কখনো তাঁর মারপিটের দারুণ সব কায়দা, কখনো আবার তাঁর নাচ হয়ে উঠত খবরের শিরোনাম। আজ বিশ্ব বাঘ দিবসে টাইগার আলোচনায় এলেন তাঁর নামের কারণে। বাঘ দিবসে তিনি জানালেন, কেন তাঁর নাম রাখা হলো ‘টাইগার’।

‘হিরোপান্তি’ ছবি দিয়ে বলিউডে যাত্রা করেন টাইগার শ্রফ। শুরুতেই সফলতা পেয়ে যান। এরপর থেকে ছেলেটিকে নিয়ে আলোচনার কমতি নেই। কখনো তাঁর মারপিটের দারুণ সব কায়দা, কখনো আবার তাঁর নাচ হয়ে উঠত খবরের শিরোনাম। আজ বিশ্ব বাঘ দিবসে টাইগার আলোচনায় এলেন তাঁর নামের কারণে। বাঘ দিবসে তিনি জানালেন, কেন তাঁর নাম রাখা হলো ‘টাইগার’। 









ছোটবেলা নাকি টাইগার যাকে সামনে পেতেন, তাঁকেই কামড়ে দিতেন। তা ছাড়া বাঘের মতো থাবা দেওয়ার অভ্যাসও ছিল তাঁর। তাই মা-বাবা টাইগারের এই দুর্ধর্ষ অভ্যাস দেখে তাঁর নাম রাখেন টাইগার। তবে এখন আর সেই দুর্ধর্ষ অভ্যাস আর নেই টাইগারের। এখন বরং সাধারণের চেয়েও বেশি শান্ত আর চুপচাপ টাইগার। তবে প্রশ্ন যখন ওঠে বন্য প্রাণীর অধিকার রক্ষা ও তাদের নিরাপত্তার, তখন আর চুপ থাকতে পারেন না এই ‘বাগি’ অভিনেতা। আজ বিশ্ব বাঘ দিবসেও তাই ব্যস্ত ছিলেন টাইগার। ভারতে অবশিষ্ট বাঘের সুরক্ষায় আজ তিনি একটি চিঠি লিখেছেন ভারতের কেন্দ্রীয় পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক মন্ত্রী অনিল দাভের কাছে।



টাইগার তাঁর প্রথম ছবি ‘হিরোপান্তি’ মুক্তির সময় ‘লি’ নামে একটি বাঘকে দত্তক নিয়েছিলেন। তিনি সেই বাঘের নিয়মিত পরিচর্যা, চিকিৎসা ও খাবারের সব ব্যয়ভার বহন করেন। পরিবেশমন্ত্রীর কাছে চিঠি লেখার পাশাপাশি গণমাধ্যমের সাহায্যে তিনি তাঁর সহকর্মীদেরও বাঘের সুরক্ষা ও নিরাপত্তার জন্য কাজ করতে এগিয়ে আসার অনুরোধ করেন। মুম্বাই মিরর।

Post A Comment: